১৮ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

পিরোজপুরে স্কুলশিক্ষকের বাড়ি ভেঙ্গে রাস্তা


নিজস্ব সংবাদদাতা, পিরোজপুর, ১৮ জানুয়ারি ॥ রবিবার সকালে সূর্যের আলো ওঠার আগেই পিরোজপুর জেলা সদরের ঝাটকাঠী এলাকার হিন্দু সম্প্রদায়ের ওপর আচমকা হামলা করে একটি প্রভাবশালী মহল। বাড়ি ঘর ভাংচুর করে পৈত্রিক সম্পত্তির ওপর দিয়ে প্রায় ৩০ হাত দৈর্ঘ্য একটি ইটের রাস্তা নির্মাণ করে নেয়। এ সময় গৃহকর্তা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের (অব.) শিক্ষক অতুল চন্দ্র মজুমদার বাধা দিতে এলে তাকে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করে মেরে ফেলার হুমকি দেয়। চোখের সামনে ভিটেবাড়ি ভাংচুর ও দখলের মহোৎসব দেখেন বাধ্য হয়ে।

এ ব্যাপারে অতুল চন্দ্র মজুমদার বলেন, জন্মের পর থেকেই এই মাথা গোঁজার ঠাঁইটুকু নিয়ে বেঁচে ছিলাম। একজন লোকের মোটরসাইকেল নিয়ে যাওয়ার জন্য আমার বসতবাড়ি ভেঙ্গেচুরে ইটের রাস্তা বানাল। ৩০-৪০ ক্যাডার চোখের সামনে সোমত্ত মেয়েকে অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজ করছিল, হুমকি দিচ্ছিল ঠিক যেন মধ্যযুগীয় বর্বরতা আমার পরিবারের ওপরে।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, অতুল মজুমদারের পার্শ্ববর্তী খালের ওপারে বসত করেন খোকন সিকদার। পিরোজপুর সদরে তিনি জুয়েলারি ব্যবসা করেন। রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের সঙ্গে সখ্য থাকায় খোকন এলাকায় প্রভাব খাটিয়ে চলেন। তার বাড়ির পাশে রাস্তা থাকা সত্ত্বেও চোখ পড়ে অতুল মজুমদারের বাড়ির ওপর। জোর করে তার বাড়ির ওপর দিয়ে রাস্তা নেয় খোকন সিকদার। নিজের বাড়ির প্রয়োজন পড়লে অতুল মজুমদার যখন বাধা দেন তখনই তার ওপর নেমে আসে হুমকির খড়গ। বাধ্য হয়ে গত ১৫ জানুয়ারি তার স্ত্রী মিতা রানী মজুমদার থানায় সব জানিয়ে একটি সাধারণ ডায়েরি করেন। তিন দিনের মাথায় ভেঙ্গেচুরে দেয়া হয় তার বসতবাড়ি। মিতা রানী মজুমদার বলেন, খোকন সিকদারের নেতৃত্বে ৩০/৪০ জনের একটি সশস্ত্র দল আমাদের বাড়িতে হামলা চালায়। অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে বাড়ি ভেঙ্গে ইটের রাস্তা তৈরি করে। তাদের ক্ষমতা থাকায় কেউ আমাদের রক্ষা করতে আসেনি। বরং আমাদের ঘরের বেড়ার কাঠ দিয়ে তারা খালের ওপর একটি কাঠের ব্রিজ তৈরি করে চলে যায়। এই শীতের মধ্যে আমরা কোথায় যাব?

এ বিষয়ে পিরোজপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবদুর রাজ্জাক মোল্লা বলেন, মামলা দায়ের করতে চাইলে অবশ্যই ব্যবস্থা নেয়া হবে।