২৩ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

২০১৯ বিশ্বকাপেও খেলতে চান ক্লার্ক!


স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ইনজুরি আর ক্লার্ক যেন পরিপূরক। ভারত সিরিজে হ্যামস্ট্রিং চোট মাথাচাড়া দিয়ে ওঠায় নিজেই ক্যারিয়ার নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছিলেন। সেই মাইকেল ক্লার্ক এখন ২০১৯ বিশ্বকাপ খেলার স্বপ্ন দেখছেন! ঘরের মাটিতে আসন্ন বিশ্বকাপ শেষে অবসরের সম্ভাবনাও উড়িয়ে দিয়েছেন আধুনিক অস্ট্রেলিয়ার অন্যতম সেরা এই ব্যাটসম্যান। ‘এটা বেশ মজার বিষয়, যখন শুনি লোকে বলছে আমি ২০১৫ বিশ্বকাপ খেলে অবসরে যাচ্ছি। সবাইকে নিশ্চিত জানিয়ে দিতে চাই, বিশ্বকাপ শেষে অবসর নিচ্ছি না। আমার ২০১৯ বিশ্বকাপেও খেলার ইচ্ছে রয়েছে।’

ক্লার্ক অবশ্য এর পক্ষে যুক্তি দেখিয়েছেন। বলেছেন, ‘আমার বর্তমান বয়স ৩৩ বছর। উইকেটরক্ষক ব্র্যাড হ্যাডিনের বয়স ৩৭। গুরুত্বপূর্ণ সদস্য হিসেবে খেলে যাচ্ছেন। তাই আমি পরের বিশ্বকাপে না খেলার কোন কারণ দেখছি না!’ সিডনিতে অনুশীলন করছেন তিনি। হ্যামস্ট্রিং অপরারেশনের পর অবস্থার দ্রুত উন্নতি হচ্ছে। গত ১১ জানুয়ারি ইনজুরিতে থাকা ক্লার্ককে অধিনায়ক করে বিশ্বকাপের মূল দল ঘোষণা করেন আয়োজক দেশটির নির্বাচকম-লী। ফিটনেস প্রমাণে তাঁকে অবশ্য ফেব্রুয়ারির তৃতীয় সপ্তাহ পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে! যার অর্থ ১৪ ফেব্রুয়ারি উদ্বোধনী দিনে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে নিজেদের প্রথম ম্যাচে নিশ্চিত করেই খেলতে পারছেন না ক্লার্ক। শারীরিক অবস্থার ঠিকঠাক উন্নতি হলে ২১ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশের বিপক্ষে দ্বিতীয় ম্যাচে ফিরতে পারবেন, অথবা অন্য কিছুও হতে পারে!

ক্লার্ক প্রসঙ্গে প্রধান নির্বাচক রডনি মার্শ বলেন, ‘ক্লার্ক বিশ্বসেরা ব্যাটসম্যান। ফিটনেস প্রমাণের জন্য তাকে আমরা সুযোগ দেব। সুতরাং অধিনায়ক হিসেবেই থাকছে সে।’ ওদিকে ২০০৭ বিশ্বকাপজয়ী দলের সদস্য, সাবেক তারকা মাইক হাসির মতে, ক্লার্কের আরও সময় পাওয়া উচিত ছিল। ‘শুরু থেকে ভারতের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে ওকে খেলানোটা একদমই ঠিক হয়নি। বিশ্বকাপের কথা মাথায় রাখা উচিত ছিল। আমি মনে করি বিশ্বকাপেও গ্রুপ পর্বের পরিবর্তে ওকে নকআউটে নামানো উচিত।’

হ্যামস্ট্রিং ইনজুরিটা ক্লার্ককে অনেকদিন ধরে ভোগাচ্ছে। গত বছরের শেষদিকে আমিরাতে পাকিস্তানের বিপক্ষে খেলতে পারেননি। ভারতের বিপক্ষে প্রথম টেস্টে ফিরে প্রথম ইনিংসে ৬৩ রান করার পর হঠাৎই চোট প্রকট হয়ে উঠলে ‘রিটায়ার্ট হার্ট’ হয়ে মাঠ ছাড়তে বাধ্য হন। ব্যথানাশক ইনজেকশন নিয়ে ফিরে গড়েন ইতিহাস, খেলেন ১২৮ রানের দুর্দান্ত ইনিংস। ছিলেন পঞ্চম দিনেও, ফিল্ডিংয়ের সময় ফের ব্যথা অনুভব করলে কুঁজো হয়ে মাঠ ছাড়েন ইনজুরিপ্রবণ ক্লার্ক।