১৯ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

পার্বতীপুরে অনিয়ম অব্যবস্থাপনায় ঐতিহ্যবাহী স্কুল


নিজস্ব সংবাদদাতা, পার্বতীপুর ১৫ জানুয়ারি ॥ দুর্বল ব্যবস্থাপনা ও নানা অনিয়মে পার্বতীপুর শহরের অতি পুরাতন ঐতিহ্যবাহী জ্ঞানাঙ্কুর পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়টির আজ বেহাল দশা। অধিকাংশ শিক্ষক কোচিং প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে জড়িত, যার ফলে তারা ঠিকমতো ক্লাসে উপস্থিত থাকে না। অনুরূপভাবে ছাত্রছাত্রীরাও কোচিংয়ের কারণে টিফিনের পরে ক্লাসে ফিরে আসে না। দীর্ঘদিন ধরে এ অবস্থা চলে এলেও প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষক এ ব্যাপারে উদাসীন বলে অভিযোগ উঠেছে। এক সময় এই প্রতিষ্ঠানের শিক্ষা-দীক্ষায় সুনামের পাশাপাশি ছাত্রছাত্রীও ছিল প্রচুর। কমতে কমতে এখন ছাত্রছাত্রীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে মাত্র ১১শ’র মতো। লেখাপড়ার মান নিচে নেমে যাওয়ায় বর্তমানে ছাত্র ভর্তির মওসুমে ছাত্রছাত্রীর ভর্তি ভিড় নেই। সূত্র অনুযায়ী বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের উদাসীনতা ও গাফিলতির কারণে বিদ্যালয়ের খেলার মাঠের ১৪ শতক জায়গা বেদখল হয়ে গেছে। পার্বতীপুর পৌরসভা জোরপূর্বক দখল করে রাস্তা ও মাস্টার ড্রেন নির্মাণ করলেও বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ কোন ব্যবস্থাই নিতে পারেনি। বিদ্যালয়ের অভ্যন্তরে তিনটি আবাসিক বাসা মাত্র ৬শ’ টাকা করে তিন শিক্ষককে ভাড়া দেয়া হয়েছে। আশ্চর্যজনক ব্যাপার, প্রতিটি বাসার বিদ্যুত বিল এক হাজার টাকার উপরে প্রতিমাসে প্রতিষ্ঠানকে পরিশোধ করতে হয়। বিদ্যালয়ের বাউন্ডারির সঙ্গে রাস্তার পাশে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ২৫টি দোকান মাত্র ৫শ’ টাকা করে ভাড়া দেয়া হয়েছে। প্রতিনিয়ত সবকিছুর মূল্যবৃদ্ধি হলেও দোকান ভাড়া এক যুগেও বাড়েনি। এছাড়াও অধিকাংশ ভাড়াটিয়া দোকানের পজিশন বিক্রি করে চলে গেছে। এভাবে দোকানগুলো বহু হাতবদল হয়েছে। তবে বর্তমানে যারা দোকানে রয়েছে তারাও ঠিকমতো ভাড়া দেয় না। প্রধান শিক্ষক আশেকউল্ল্যাহ অনিয়ম-অব্যবস্থাপনা কিছুটা থাকলেও অল্পদিনেই সবকিছু ঠিক হয়ে যাবে বলে জানান। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সভাপতি উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাহেনুল ইসলাম বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টায় জানান, তিনি প্রতিষ্ঠানের দায়িত্ব নিয়ে দেখছেন এখানে সমস্যা অনেক। বিষয়গুলো খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তবে অনিয়ম-দুর্নীতি কাগজ-কলমে ধরা পড়লে কেউ পার পাবে না।

পটুয়াখালীতে অপহৃত স্কুলছাত্রী উদ্ধার ॥ হোন্ডাসহ আটক তিন

নিজস্ব সংবাদদাতা, পটুয়াখালী, ১৫ জানুয়ারি ॥ পটুয়াখালীতে এক স্কুলছাত্রী অপহরণের পাঁচ ঘণ্টা পর স্থানীয়দের সহায়তায় উদ্ধার করেছে সদর থানা পুলিশ। এ সময় অপহরণের কাজে ব্যবহৃত দুটি মোটরসাইকেলসহ চালক ও এক ট্রলারের চালককে আটক করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল ৭টায় সদর উপজেলার বড় বিঘাইতে এ অপহরণের ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, বৃহস্পতিবার সকালে প্রতিদিনের মতো কেওয়াবুনিয়া স্বেচ্ছাসেবক মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের এসএসসি পরীক্ষার্থী প্রাইভেট পড়তে বাড়ি থেকে বের হলে পূর্বপরিকল্পনা অনুযায়ী ছোট বিঘাই এলাকার বখাটে যুবক মিরাজ তার দলবল নিয়ে তাকে মোটরসাইকেলে তুলে নিয়ে যায়। এ সময় তার চিৎকারে স্থানীয়রা ধাওয়া করে তিতকাটা নদীর ঘাট থেকে উদ্ধার করে।