২১ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৩ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

অসহিষ্ণুতার বিরুদ্ধে মেরকেলের লড়াই


জার্মান চ্যান্সেলর এ্যাঞ্জেলা মেরকেল বলেছেন, অসহিষ্ণুতার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে তার সরকার সর্বোচ্চ শক্তি ব্যবহার করবে এবং তিনি ধর্মীয় বিশ্বাসভিত্তিক বৈষম্যকে মানবিকভাবে নিন্দনীয় বলেছেন। পূর্ব জার্মানীর ড্রেসডেনে মুসলিমবিরোধী সমাবেশের একদিন পর মঙ্গলবার বার্লিনে মুসলিমদের আয়োজিত এক সমাবেশে তিনি এ কথা বলেন। খবর ডন ও বিবিসির

সহিষ্ণুতা ও ধর্মীয় স্বাধীনতাকে সমর্থন করে বার্লিনের আইকনিক ব্রান্ডেনবার্গ গেটে জার্মানীর সেন্ট্রাল কাউন্সিল অব মুসলিমস সন্ত্রাসবিরোধী এ সমাবেশের আয়োজন করে। এতে দেশটির প্রেসিডেন্ট জোয়াকিম গাউকও উপস্থিত ছিলেন। ফরাসী ব্যঙ্গ সাময়িকী শার্লি হেবদোতে জঙ্গী হামলার পর জার্মানীতে মুসলিম বিদ্বেষ মাথাচাড়া দেয়ার প্রেক্ষিতে এ সমাবেশের আয়োজন করা হয়। সম্প্রতি জার্মানীজুড়ে মুসলিমবিরোধী সংগঠন পেট্রিয়টিক ইউরোপিয়ানস এ্যাগেনস্ট দ্য ইসলামাইজেশন অব দ্য ওয়েস্টের (পেজিডা) ইসলামবিরোধী সমাবেশগুলোর বিষয়েও প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন আয়োজকরা। ড্রেসডেনে পেজিডার সোমবারের সমাবেশে রেকর্ডসংখ্যক ২৫ হাজার মানুষ উপস্থিত ছিলেন। এই সমাবেশে কিছু সমর্থককে মেরকেলের হিজাব পরিহিত ব্যঙ্গাত্মক পোস্টার বহন করতে দেখা যায়। তারা অভিবাসী আইন কঠোর করার এবং জার্মানীতে বহুসংস্কৃতির অবসানের আহ্বান জানান। এদিকে সোমবার জার্মানীর বিভিন্ন শহরে পেজিডাবিরোধী বড় ধরনের প্রতিবাদ কর্মসূচীও পালন করা হয়েছে।

প্যারিস সহিংসতার নিন্দা দ্রুত জানানোয় মেরকেল জার্মানীর ৪০ লাখ মুসলিমকে ধন্যবাদ জানান। এর আগে সোমবার ইসলাম জার্মানীর অবিচ্ছেদ্য অংশ বলে ঘোষণা করেছিলেন তিনি। বার্লিনের সমাবেশে তিনি পেজিডা আন্দোলন ও এর সমর্থকদের কঠোর নিন্দা করে বলেন, অসহিষ্ণুতা ও সহিংসতার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে আমাদের সব ধরনের উপায় ব্যবহার করতে হবে।