২০ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

সেলিম আল দীনের আজ সপ্তম প্রয়াণবার্ষিকী ॥ নানা আয়োজন


স্টাফ রিপোর্টার ॥ রবীন্দ্রনাথ পরবর্তী বাংলা নাটকের নতুন আলোর দিশারী সেলিম আল দীন। পশ্চিমা নাট্যরীতিকে পাশ কাটিয়ে কাজ করেছেন হাজার বছরের দেশীয় ঐতিহ্য। বাংলা নাটকে প্রবর্তন করেছেন বর্ণনাত্মক ধারা।

আজ বুধবার দেশের নাট্য আন্দোলনে পথিকৃৎ নাট্যাচার্য সেলিম আল দীনের সপ্তম প্রয়াণবার্ষিকী। ২০০৮ সালের এই দিনে (১৪ জানুয়ারি) তিনি না ফেরার দেশে পাড়ি জমান। নাটকের আঙ্গিক ও ভাষার ওপর গবেষণা করেছেন সেলিম আল দীন।

প্রয়াণবার্ষিকী উপলক্ষে সেলিম আল দীন স্মরণে সেলিম আল দীন ফাউন্ডেশন ও নাট্য সংগঠন স্বপ্নদল আলাদা আলাদা কর্মসূচী গ্রহণ করেছে। সেলিম আল দীন ফাউন্ডেশন ১৪ ও ১৫ জানুয়ারি স্মরণানুষ্ঠানের আয়োজন করেছে। আজ সকাল ১০টায় জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে নাট্যাচার্যের সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন ও সন্ধ্যা ৭টায় জাতীয় নাট্যশালায় সেলিম আল দীনের বিভিন্ন নাটকের নাট্যকোলাজ ‘পুতুল তোমার জনম কি রূপ’ চরিত্রাঙ্কন করবেন শিমুল ইউসুফ। একাডেমির সেমিনার কক্ষে বৃহস্পতিবার বিকাল সাড়ে ৩টায় অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম চৌধুরীর সভাপতিত্বে ‘বাংলার প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শিক্ষার পাঠ্যপুস্তকে হিন্দু-মুসলিম প্রসঙ্গ এবং দেশভাগ’ শিরোনামে প্রবন্ধ পাঠ করা হবে। প্রবন্ধ পাঠ করবেন রাহমান চৌধুরী।

‘বাঙলা নাট্যরীতির বিজয় কেতন, অমানিশাকালে স্বর্ণাভ চেতন, নাট্যাচার্য সেলিম আল দীন’ স্লোগান ধারণ করে শিল্পকলা একাডেমিতে সোমবার থেকে শুরু হয়েছে তিনদিনব্যাপী ‘নাট্যাচার্য সেলিম আল দীন স্মরণোৎসবÑ২০১৫’। নাট্যজন ম. হামিদ সোমবার জাতীয় নাট্যশালার প্রধান মিলনায়তনে এ উৎসবের উদ্বোধন করেন। উৎসবের শেষ দিন আজ বুধবার সকাল আটটায় শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালা থেকে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে যাত্রা এবং সাড়ে নয়টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের পুরাতন কলাভবন থেকে সেলিম আল দীনের সমাধি অভিমুখে স্মরণ-শোভাযাত্রাসহ পুষ্পাঞ্জলি অর্পণ। এরপর সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টায় এক্সপেরিমেন্টাল থিয়েটারে থাকছে কলকাতার ’বাঙলা নাটকের উৎসব-২০১৫’-এ আমন্ত্রিত স্বপ্নদলের দর্শকনন্দিত প্রযোজনা ’স্পার্টাকাস’-এর বিশেষ মঞ্চায়ন। উৎসবের সমাপনী বক্তব্য রাখবেন নাট্যজন সৈয়দ জামিল আহমেদ।

বাংলা নাটকের শিকড়সন্ধানী এ নাট্যকার ঐতিহ্যবাহী বাংলা নাট্যের বিষয় ও আঙ্গিক নিজ নাট্যে প্রয়োগের মাধ্যমে বাংলা নাটকের আপন বৈশিষ্ট্য তুলে ধরেছেন। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের নাটক ও নাট্যতত্ত্ব বিভাগের প্রতিষ্ঠা সেলিম আল দীনের হাত ধরেই। ঢাকা থিয়েটারের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য সেলিম আল দীন ১৯৮১-৮২ সালে নাট্যনির্দেশক নাসির উদ্দীন ইউসুফকে সঙ্গী করে গড়ে তোলেন গ্রাম থিয়েটার।

তার প্রথম রেডিও নাটক ‘বিপরীত তমসায়’। প্রথম মঞ্চনাটক ‘সর্প বিষয়ক গল্প’ ১৯৭২ সালে মঞ্চায়ন হয়। শুধু নাটক রচনার মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকেননি, বাংলা ভাষার একমাত্র নাট্যবিষয়ক কোষগ্রন্থ বাংলা নাট্যকোষ সংগ্রহ, সংকলন, প্রণয়ন ও সম্পাদনা তিনি করেছেন। জীবনের শেষ ভাগে তিনি রচনা করেন ‘নিমজ্জন’ নামে মহাকাব্যিক এক উপাখ্যান। তিনি একুশে পদক, বাংলা একাডেমি পুরস্কার, নান্দিকার পুরস্কার, জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার, খালেকদাদ চৌধুরী সাহিত্য পুরস্কারসহ নানা পুরস্কার ও সম্মাননায় ভূষিত হন।

সর্বাধিক পঠিত:
পাতা থেকে: