২১ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

ভারতের কাছ থেকে ট্রানজিট সুবিধা পাওয়ার আশাবাদ বাণিজ্যমন্ত্রীর


অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ প্রতিবেশী রাষ্ট্র ভারতের কাছ থেকে ট্রানজিট সুবিধা পাওয়া যাবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। তিনি বলেন, নেপাল ও ভুটানের সঙ্গে ভারতের সরাসরি কানেকটিভিটি রয়েছে। কিন্তু আমাদের সঙ্গে এ সুবিধা নেই। এ দুটি দেশের সঙ্গে পণ্য রফতানি বা আমদানি করতে ভারতের ভূখ-ের ব্যবহার প্রয়োজন হয়। এ কারণে দেশ দুটির সঙ্গে সরাসরি পণ্য পরিবহনে ভারতের কাছে ট্রানজিট সুবিধা চাওয়া হয়েছে। আশা করছি, এ সুবিধা আমরা পাব। সোমবার সচিবালয়ে ভারতীয় হাইকমিশনার পঙ্কজ শরনের সঙ্গে বৈঠক শেষে তিনি সাংবাদিকদের এ কথা বলেন।

ভারতের সঙ্গে ট্রানজিট চুক্তি না থাকার অসুবিধার কথা তুলে ধরে তোফায়েল আহমেদ বলেন, বাংলাদেশ থেকে যেসব পণ্য নেপাল ও ভুটানে যায় সেগুলো ভারতের উপর দিয়ে যায়। কিন্তু ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের ট্রানজিট চুক্তি না থাকায় বাংলাদেশের ট্রাক ভারতে প্রবেশ করতে পারে না। অন্যদিকে নেপাল ও ভুটানের সঙ্গে ভারতের ট্রানজিট চুক্তি থাকায় তাদের পরিবহন বাংলাদেশের সীমান্ত পর্যন্ত আসতে পারে। তিনি বলেন, এছাড়া ত্রিপুরা অভিমুখী ভারতের পণ্য বাংলাদেশের আশুগঞ্জ হয়ে ত্রিপুরা পৌঁছায়। বাংলাদেশের ট্রাক ও জাহাজ এসব পণ্য ত্রিপুরা পর্যন্ত পৌঁছে দেয়। বাংলাদেশের সঙ্গে ভারতের ট্রানশিপমেন্ট চুক্তি না থাকায় ভারতের পরিবহনও বাংলাদেশে প্রবেশ করতে পারছে না। বৈঠকে এ বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হয়েছে।

সীমান্ত হাট ॥ আজ মঙ্গলবার বাংলাদেশের ফেনীর ছাগলনাইয়া এবং ভারতের ত্রিপুরা সীমান্তে চালু হচ্ছে সীমান্ত হাট। দু’দেশের বাণিজ্যমন্ত্রী এ হাট উদ্বোধন করবেন। সচিবালয়ে নিজ কক্ষে এ কথা জানান বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। তিনি বলেন, আগামীকাল (আজ) ফেনী জেলার ছাগলনাইয়া সীমান্তে ভারত-বাংলাদেশের মধ্যে তৃতীয় সীমান্ত হাট উদ্বোধন হবে। বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, মূলত আমরা সীমান্ত হাট নিয়ে আলোচনা করেছি। পণ্য রফতানিতে ভারতের সঙ্গে আমাদের যে সমস্যা রয়েছে তা সমাধানের পথে। সীমান্তে পণ্য আমদানিতেও যে সমস্যা রয়েছে তা সহজ করতে আমরা ঐকমত্যে পৌঁছেছি। ভারতের যা করার তা করবে, আমাদের পক্ষ থেকে আমরাও করব। আশা করি, এ সমস্যার সমাধান হবে।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: