২১ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৪ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

রাষ্ট্রপতির কাছে চার দেশের দূতের পরিচয়পত্র পেশ


বাংলাদেশে বেলজিয়াম ও বুলগেরিয়ার দায়িত্বপ্রাপ্ত রাষ্ট্রদূত এবং বোতসোয়ানা ও নেসোথোর দায়িত্বপ্রাপ্ত হাইকমিশনার সোমবার বঙ্গভবনে পৃথকভাবে রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদের কাছে তাঁদের পরিচয়পত্র পেশ করেছেন। খবর বাসসর।

এই অনাবাসিক দূতগণ হচ্ছেন বেলজিয়ামের জন লুং, বুলগেরিয়ার পেটকো কোলেভ দোইকোভ, বোতসোয়ানার লেসেগো ইথেল মতসুমি ও লেসোথোর বোথাতা টিসিকোনে। রাষ্ট্রদূত ও হাইকমিশনারদের স্বাগত জানিয়ে রাষ্ট্রপতি বলেন, বাংলাদেশ ও এসব দেশের মধ্যে অর্থবহ সহযোগিতামূলক সম্পর্ক আরও উন্নয়নের অনেক সম্ভাবনা ও সুযোগ রয়েছে। রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব ইহসানুল করিম এ কথা বলেন।

রাষ্ট্রপতি তাদের বাংলাদেশে দায়িত্বপালনকালে সবধরনের সহযোগিতার আশ্বাস দেন। রাষ্ট্রপতির সংশ্লিষ্ট সচিবগণ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

গোটা সমুদ্র সীমানায় প্রথমবারের মতো নৌবাহিনীর মহড়া শুরু

বাংলাদেশের সমুদ্র সীমানা নির্ধারণের পর এই প্রথমবারের মত সোমবার বাংলাদেশের সম্পূর্ণ সমুদ্র সীমা জুড়ে শুরু হয়েছে নৌবাহিনীর বার্ষিক সমুদ্র মহড়া ‘এক্সারসাইজ সি থান্ডার-২০১৫’। এই মহড়ায় চট্টগ্রাম ও খুলনা নৌঅঞ্চলের বিভিন্ন জাহাজ, নৌবাহিনীর বিশেষায়িত ইউনিট সোয়াডস্ এবং মেরিটাইম পেট্রোল এয়ার ক্রাফট ও হেলিকপ্টার অংশগ্রহণ করছে।

দীর্ঘ ১৬ দিনব্যাপী আয়োজিত এই মহড়ায় নৌবাহিনীর ঘাঁটিসমূহ ছাড়াও সকল সচল যুদ্ধজাহাজ ও সাহায্যকারী জাহাজ অংশগ্রহণ করছে। এছাড়াও সম্মিলিত অভিযান পরিচালনার মহড়ায় সেনাবাহিনী, বিমানবাহিনী, বাংলাদেশ কোস্টগার্ডসহ বিভিন্ন মন্ত্রণালয়, মেরিটাইম সংস্থা এবং বিভাগসমূহ অংশগ্রহণ করছে। আদালতের রায়ে নতুনভাবে নির্ধারিত বাংলাদেশের বিস্তৃত সমুদ্রসীমায় সার্বভৌমত্ব নিশ্চিতকরণ, সমুদ্র এলাকায় নজরদারি বজায় রাখা, সমুদ্র সম্পদের হেফাজত, সমুদ্র পথের নিরাপত্তা বিধানসহ শান্তিকালীন সময়ের বিভিন্ন মহড়া অনুশীলনই এই মহড়ার অন্যতম লক্ষ্য।

এই সমুদ্র মহড়া নৌসদরের মেরিটাইম হেডকোয়ার্টার এর তত্ত্বাবধানে চট্টগ্রাম আঞ্চলিক মেরিটাইম হেডকোয়ার্টার ও খুলনা আঞ্চলিক মেরিটাইম হেডকোয়ার্টার দ্বারা পরিচালিত হচ্ছে। আগামী ২৭ জানুয়ারি বঙ্গোপসাগরে বিভিন্ন ফায়ারিং ও ফ্লিট রিভিউ এর মধ্য দিয়ে এই মহড়া শেষ হবে। -আইএসপিআর