১৭ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট পূর্বের ঘন্টায়  
Login   Register        
ADS

জেনারেল পেট্রাউসের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের হচ্ছে


মার্কিন প্রসিকিউটররা এক সাবেক প্রেমিকাকে গোপনীয় তথ্য সরবরাহের দায়ে সিআইএর সাবেক পরিচালক ডেভিড পেট্রাউসের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনার সুপারিশ করেছেন। পদকপ্রাপ্ত সাবেক জেনারেল পেট্রাউস ২০১২ সালে সিআইএর প্রধান পদে ইস্তাফা দেন। এর আগে ওই প্রেমিকা পলা ব্রডওয়েলের সঙ্গে প্রণয় সম্পর্কের বিস্তারিত কথা প্রকাশ পায়। ওই পদে আসীন হওয়ার পূর্বে পেট্রাউস ইরাক ও আফগানিস্তানে মার্কিন বাহিনীর কমান্ডার ছিলেন। খবর নিউইয়র্ক টাইমস ও বিবিসির।

মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা ফেডারেল ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (এফবিআই) এবং বিচার দফতরের প্রসিকিউটররা ডেভিড এইচ পেট্রাউসের বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ দায়েরের সুপারিশ করেছেন। তাঁরা বলেন, তিনি সিআইএর পরিচালক থাকা কালে তাঁর প্রেমিকা ব্রডওয়েলকে গোপনীয় তথ্য সরবরাহ করেছিলেন। এখন মার্কিন এ্যাটর্নি জেনারেল এরিক হোল্ডারকে পেট্রাউসের বিরুদ্ধে আনুষ্ঠানিক অভিযোগ আনা হবে কিনা সেই সিদ্ধান্ত নিতে হবে। এ অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত হলে এরিকের সমসাময়িক বিখ্যাত সামরিক অফিসারকে কারাবরণ করতে হতে পারে। ব্রড ওয়েলের সঙ্গে পেট্রাউসের প্রণয়ঘটিত সম্পর্ক ফাঁস হওয়ার পর থেকে বিচার দফতরের তদন্ত শুরু হয়। ওই মহিলা তখন একজন আর্মি রিচার্ড অফিসার ছিলেন এবং তিনি পেট্রাউসের জীবনী লিখছিলেন। পেট্রাউস তাঁর সিআইএ ই-মেইল এ্যাকাউন্টে ঢোকার ও অন্যান্য অতি গোপনীয় তথ্য জানার সুযোগ ব্রডওয়েলেকে দিয়েছিলেন কিনা, বিচার দফতরের তদন্তকারীরা সেই দিকে দৃষ্টি দেন।

পেট্রাউস ২০১২ সালের সিআইএ থেকে পদত্যাগ করার পর এফবিআই এজেন্টরা ব্রডওয়েলের কম্পিউটারে গোপনীয় দলিলপত্র দেখতে পান। সেই বছরই তাঁদের প্রণয়ের ঘটনা প্রকাশ পায়। অবসরপ্রাপ্ত চার তারকা জেনারেল পেট্রাউস বলেন, তিনি এমএস ব্রডওয়েলকে কখনও গোপনীয় তথ্য সরবরাহ করেননি। তিনি এ বিব্রতকর বিচার এড়ানোর জন্য অপরাধ স্বীকার করে কোন আপোসে পৌঁছতেও উৎসাহী নন বলে বিচার দফতরকে আভাস দিয়েছেন।

পেট্রাউসের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হবে কিনা, হোল্ডার সেই বিষয়ে গত বছরের শেষ নাগাদ সিদ্ধান্ত নেবেন বলে প্রত্যাশা করা হয়েছিল। কিন্তু তিনি কিভাবে এগোনোর পরিকল্পনা করছেন, তাঁর কোন আভাস দেননি।