২২ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৭ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

কক্সবাজার-টেকনাফ সড়কের বাঁক যেন মরণফাঁদ


নিজস্ব সংবাদদাতা, উখিয়া, ৮ জানুয়ারি ॥ কক্সবাজার-টেকনাফ সড়কের বাঁকগুলো মরণফাঁদে পরিণত হয়েছে। লিংক রোড থেকে টেকনাফ পর্যন্ত ৭৯ কিলোমিটার সড়কের শতাধিক বাঁকে গত এক সপ্তাহে ৫ জন নিহত ও অর্ধশতাধিক যাত্রী গুরুতর আহত হয়েছেন। দুর্ঘটনাকবলিত হয়ে ৭টি গাড়ি ভেঙেচুরে নষ্ট হয়ে যাওয়ায় যানবাহন মালিকদের অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে। সড়ক ও জনপথ বিভাগের অদূরদর্শিতার কারণে এসব দুর্ঘটনা ঘটছে বলে যানবাহন চালক ও যাত্রীসাধারণের অভিযোগ।

সূত্র জানায়, দেশের শেষ দক্ষিণাঞ্চলের গুরুত্বপূর্ণ উপজেলা উখিয়া ও সীমান্ত শহর টেকনাফের সেন্টমার্টিন, মাথিনের কূপ, ন্যাচারাল পার্ক, নাইট্যংয়ের পাহাড়সহ দর্শনীয় স্থানসমূহের নৈসর্গিক দৃশ্য অবলোকন করার জন্য প্রতিনিয়ত শত শত দেশী-বিদেশী পর্যটক এ সড়কে আসা-যাওয়া করছে। পাশাপাশি পার্শ্ববর্তী দেশ মিয়ানমারের সঙ্গে বাণিজ্যচুক্তির পণ্য আমদানি-রফতানি হওয়ায় সড়কটি অতীব গুরুত্ব বহন করলেও সড়ক ও জনপথ বিভাগের তা নিয়ে কোন মাথাব্যথা নেই বলে অভিযোগ উঠেছে। সূত্রে জানা যায়, ঝুঁকিপূর্ণ বাঁকে দিকনির্দেশনা সংবলিত কোন সাইনবোর্ড নেই। দূরপাল্লার যাত্রী পরিবহনে নিয়োজিত এস. আলম সার্ভিসের চালক গিয়াস উদ্দিন (৩৫) জানান, এ সড়কে নতুন কোন চালক গাড়ি নিয়ে এলে তাকে মৃত্যুঝুঁকি নিয়ে ৭৯ কিলোমিটার পথ অতিক্রম করতে হবে। কারণ এ সড়কের কোন বাঁকেই সাংকেতিক চিহ্ন নেই।

উখিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ জহিরুল ইসলাম খান সড়কে যানবাহন দুর্ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, এ সড়কে যানবাহনের সংখ্যা বৃদ্ধি পেলেও সড়ক সম্প্রসারিত হয়নি। যে কারণে দুর্ঘটনার সংখ্যা বাড়ছে। এ প্রসঙ্গে সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী নূর-ই-আলম জানান, প্রতি অর্থবছরে সড়কের গুরুত্বপূর্ণ বাঁকে সাংকেতিক চিহ্ন সংবলিত সাইনবোর্ড লাগানো হয়ে থাকে। এসব সাইনবোর্ড কে বা কারা চুরি করে নিয়ে যাচ্ছে। এ ব্যাপারে স্থানীয়রা আন্তরিক না হলে সড়কের নিরাপত্তা বিঘিœত হবে। তিনি বলেন, অচিরেই সড়কে নতুন করে সাইনবোর্ড, প্রতিবন্ধকতামূলক খুুঁটি ও বিভিন্ন ব্রিজে রং লাগানোর কাজ শুরু হবে।

বগুড়ায় জমি নিয়ে সংঘর্ষ ॥ মহিলা নিহত, আহত চার

স্টাফ রিপোর্টার,বগুড়া অফিস ॥ বৃহস্পতিবার সকালে বগুড়ার গাবতলীতে জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে দু’গ্রুপের সংঘর্ষে বিলকিস (৩৬) নামের এক মহিলা নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় ৪ জন আহত হয়েছে।

পুলিশ জানায়, উপজেলার বালিয়াদীঘি তল্লাতলা পূর্বপাড়া গ্রামের তোফাজ্জল ও টনি ম-লের মধ্যে ৩১ বিঘা জমি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। বৃহস্পতিবার টনি ম-ল ও তার লোকজন বিরোধপূর্ণ জমিতে গেলে দু’পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়। এক পর্যায়ে সংঘর্ষ বাঁধে। এতে ধারালো অস্ত্র ও লাঠির আঘাতে তোফাজ্জল হোসেনের মেয়ে বিলকিসসহ ৪জন আহত হয়। পরে আহত বিলকিসকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে আসা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

ট্রেন চলাচলে পশ্চিম রেলে সতর্কতা

নিজস্ব সংবাদদাতা, পার্বতীপুর, ৮ জানুয়ারি ॥ অবরোধের কারণে পশ্চিম রেলে নিবিঘেœ ট্রেন চলাচলের ক্ষেত্রে অধিকতর সতর্কতামূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে রেল কর্তৃপক্ষ। রেল লাইন নিরাপদ রাখতে গোটা পশ্চিমাঞ্চলে এলাকা ভাগ করে আই ও ডাবলুর ওয়েম্যানদের প্রহারার দায়িত্ব দিয়ে রেডি অবস্থায় রাখা হয়েছে। এ ক্ষেত্রে পুলিশ প্রশাসন মূখ্য দায়িত্ব পালন করছে। যোগাযোগ করলে বৃহস্পতিবার বেলা ৩.৩০ মিনিটে সৈয়দপুর রেলওয়ে জেলার পুলিশ সুপার মোঃ সিদ্দিকী তনজিলুর রহমান জানান, রেলের গুরত্বপূর্ণ স্থাপনা ও রেলপথ নিরাপদ রাখতে নানমুখী পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। পুলিশ ছাড়াও নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্য ও আনসারদের দায়িত্বে নিয়োজিত করা হয়েছে। পাশাপাশি সিভিল প্রশাসনও দায়িত্ব পালন করছে।