১৯ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৬ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

অগ্রাধিকার ভিত্তিতে দ্রুত বাস্তবায়নাধীন ৬ প্রকল্পে আরও দুই মেগা প্রজেক্ট অন


সরকারের অগ্রাধিকার ভিত্তিতে দ্রুত বাস্তবায়নাধীন ৬টি বড় প্রকল্পে আরও নতুন দুটি প্রকল্প অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে বুধবার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত ফাস্ট ট্র্যাক মনিটরিং কমিটির তৃতীয় বৈঠকে আরও দুটি নতুন মেগা প্রকল্প অন্তর্ভুক্ত করা হয়। খবর বাসসর।

প্রকল্প দুটি হলো মাতারবাড়ি আল্ট্রাসুপার ক্রিটিক্যাল কোলফায়ার্ড পাওয়ার প্রজেক্ট এবং পায়রা বন্দর প্রকল্প।

প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সেক্রেটারি এ কে এম শামীম চৌধুরী বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের বলেন, বৈঠকে ইতোপূর্বে নেয়া ৬টি প্রকল্পের অগ্রগতি এবং মাতারবাড়ি পাওয়ার প্রজেক্ট নিয়ে আলোচনা করা হয়।

বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী স্ব-স্ব দায়িত্ব যথাযথ পালনের মাধ্যমে নির্ধারিত সময়ে প্রকল্প কাজ সম্পন্ন করতে সংশ্লিষ্ট সকলকে নির্দেশ দেন। বৈঠকে জানানো হয়, বহুল আলোচিত পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজ ২০১৮ সালের ৭ ডিসেম্বর সম্পন্ন হবে।

বৈঠকে আরও জানানো হয়, জাজিরা ও মাওয়া সাইডে পদ্মা সেতুর সংযোগ সড়কের নির্মাণ কাজ, সার্ভিস এরিয়া-২, রিভার ট্রেনিং ওয়ার্ক, রিভার ব্যাংক প্রটেকশন ওয়ার্ক, ভূমি অধিগ্রহণ এবং ক্ষতিগ্রস্তদের মধ্যে প্লট হস্তান্তর কাজ চলছে। পাশাপাশি দুটি পয়েন্টে মূল সেতুর জিওটেকনিকেল ইনভেস্টিগেশন কাজ শুরু হয়েছে।

বৈঠকে আরো জানানো হয়, জাজিরা সাইডে সংযোগ সড়কের ৩০ শতাংশ কাজ, মাওয়া সাইডে সংযোগ সড়কের ২০ শতাংশ কাজ, সার্ভিস এরিয়া-২ এর ১৫ শতাংশ কাজ, মূল সেতুর ১.৫ শতাংশ কাজ, ভূমি অধিগ্রহণের ৯৯ শতাংশ কাজ এবং পুনর্বাসন কর্মসূচীর ৬৫ শতাংশ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। পাশাপাশি মূল সেতুর তদারকি কাজ এবং রিভার ট্রেনিং কাজ চলছে।

বৈঠকে রূপপুর পারমাণবিক পাওয়ার প্লান্টের অগ্রগতি সম্পর্কে জানানো হয়, বাংলাদেশ এটোমিক এনার্জি কমিশন এবং রুশ ফেডারেশনের মধ্যে স্বাক্ষরিত প্রথম চুক্তির অধীনে পাঁচটির মধ্যে তিনটি প্রোগ্রাম অর্জন হয়েছে। দ্বিতীয় চুক্তির অধীন ৫ শতাংশ কাজ শেষ হয়েছে। তৃতীয় চুক্তির অধীনের কাজ শুরু হয়েছে।

বাংলাদেশ আণবিক শক্তি কমিশনের নিয়োগকৃত কনসালটিং ফার্মের মাধ্যমে একটি কোম্পানি গঠনের পৃথক আইনের খসড়া প্রস্তুত করা হয়েছে। এটি শীঘ্রই মন্ত্রিসভায় পেশ করা হবে।

প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সেক্রেটারি আরও বলেন, বাংলাদেশ আণবিক শক্তি কমিশন এবং রুশ ফেডারেশনের মধ্যে চতুর্থ চুক্তি শীঘ্রই স্বাক্ষর হবে।

পরিবেশ ও বনমন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জু, পরিকল্পনা মন্ত্রী এএইচএম মোস্তফা কামাল, সেতু ও পরিবহন বিয়ষক মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, নৌপরিরবহন মন্ত্রী শাজাহান খান, ভূমিমন্ত্রী শাামসুর রহমার ডিলু, প্রধানমন্ত্রীর খনিজসম্পদ বিষয়ক উপদেষ্টা তৌফিক-ই-ইলাাহী চৌধুরী, বিদ্যুত প্রতিমন্ত্রী নজরুল হামিদ বিপু ও বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমানসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা সভায় উপস্থিত ছিলেন।