২৩ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

আবারও পেছাল ফুটবল দল বদল!


স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ গত মৌসুমের কথা মনে আছে? বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে) এত ঘন ঘন তাদের ফুটবল টুর্নামেন্ট ও লীগের খেলাগুলোর সূচী পরিবর্তন করেছিল, অনেকেই তখন রসিকতা করে বলেছিলেন, ‘সবচেয়ে বেশি ফিকশ্চার চেঞ্জ করার বিশ্বরেকর্ড গড়ার জন্য বাফুফেকে উষ্ণ অভিনন্দন জানানো উচিত।’ এবার আসা যাক নতুন ফুটবল মৌসুমে। এবার এই মৌসুম শুরুর আগেই চলছে খেলা পেছানোর মেলা! গত ডিসেম্বরের তৃতীয় সপ্তাহ থেকে ফেডারেশন কাপ দিয়ে শুরু হওয়ার কথা ছিল নয়া মৌসুম। এখন ডিসেম্বর পেরিয়ে জানুয়ারি চলছে, অথচ মৌসুম আরম্ভই করতে পারেনি দেশীয় ফুটবলের সর্বোচ্চ এই সংস্থাটি। কারণটা হচ্ছে ‘বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ টুর্নামেন্ট।’ দীর্ঘ ১৫ বছর পর এই টুর্নামেন্টটি আয়োজন করতে গিয়ে পঞ্চম বিদেশী দলই এখনও চূড়ান্ত করতে না পারায় আগামী ১৬ জানুয়ারিতেও নির্ধারিত সময়ে আরম্ভ করা যাচ্ছে না বহুল আলোচিত এই আসরটি। শুধু তাই নয়, এক বঙ্গবন্ধু কাপের কারণেই এখন স্বাভাবিকভাবেই পিছিয়ে যাবে কদিন আগেই বাফুফে প্রণীত ফুটবল পঞ্জিকার সব টুর্নামেন্টটি। নতুন মৌসুমে দলবদল নিয়েও চলছে আরেক খেলা। এ নিয়ে তিনবার তারিখ দেয়া হয়েছে দলবদলের। সর্বশেষ পেছানো হলো মঙ্গলবার। পেশাদার লীগের ১০টি ক্লাবের মধ্যে ছয় ক্লাবের আবেদনের পরিপেপ্রক্ষিতে দল বদলের সময়সীমা আরেক দফা পিছিয়েছে পেশাদার লীগ কমিটি। আজ ৭ জানুয়ারি ছিল দল বদলের শেষ দিন। সেটা এখন বর্ধিত করা হয়েছে ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত। যে ছয়টি ক্লাব দল বদলের সময়সীমা বর্ধিত করার অনুরোধ জানিয়েছে, তারা হলোÑ মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব লিমিটেড, ব্রাদার্স ইউনিয়ন লিমিটেড, বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ক্রীড়া চক্র লিমিটেড, ফেনী সকার ক্লাব, টিম বিজেএমসি এবং ফরাশগঞ্জ স্পোর্টিং ক্লাব। তবে দু-একটি ক্লাব অখুশি এই সিদ্ধান্তে। নামপ্রকাশে অনিচ্ছুক এক ক্লাব কর্মকর্তা বলেছেন লীগ কমিটির এ সিদ্ধান্তর কারণে আমাদের কিছু খেলোয়াড় অন্য ক্লাবে যোগ দিতে পারে। এতে ক্ষতিগ্রস্ত হবেন তারা। দলবদল পেছালেও তার প্রভাব খুব একটা পড়বে না বলেই জানালেন লীগ কমিটির চেয়ারম্যান। এবার পেছালেও পরের ফুটবল মৌসুম ডিসেম্বরেই শুরু হবে নিশ্চিত করেছেন তিনি। পেশাদার লীগের মিটিং হওয়ার কথা ছিল মঙ্গলবার। দেশের তথা রাজধানীর রাজনৈতিক প্রতিকূল পরিস্থিতি বিবেচনা করে তা স্থগিত করা হয়। ১১ (এবার প্রিমিয়ার লীগে একটি দল বাড়ানো হয়েছে) ক্লাবের কর্তাদের কাছে আগের রাতে সেলফোনে বার্তাও দেয়া হয়। তবে দুর্ভাগ্যবশত তা খেয়াল করেননি শেখ জামাল ধানম-ি ক্লাব লিমিটেডের পেশাদার লীগ কমিটির প্রতিনিধি আব্দুল গাফ্ফার। দুপুর ১টায় তাঁকে ফোনে জানানো হয় মিটিং স্থগিত করা হয়েছে। বাফুফে ভবনে এসে এ নিয়ে হতাশা ব্যক্ত করেন তিনি। কেন দল বদল পিছিয়েছে, অনেকের মতো এটা তাঁরও প্রশ্ন। অভিযোগ ওঠে নিজের একক সিদ্ধান্তে সালাম দল বদল পেছানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তবে সেই প্রশ্নের উত্তর দেয়ার জন্য পান্থপথে নিজের ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানে সংবাদ সম্মেলন আয়োজন করেন পেশাদার ফুটবল লীগ কমিটির চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম মুর্শেদী। সেখানেই তিনি জানান বিস্তারিত সবকিছু।