২১ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

তারেক বেয়াদব নয়, বিশ্ববেয়াদব ॥ মেনন


স্টাফ রিপোর্টার ॥ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে তারেক জিয়ার দেয়া বক্তব্যকে বেয়াদবী বলে আখ্যায়িত করেছেন ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন। তিনি বলেন, ‘এই অর্বাচীন ছাত্রজীবনে কোন সংগঠনে যুক্ত ছিল না। যার রাজনৈতিক উত্থান আকস্মিক। ইতিহাস সম্পর্কে সে অজ্ঞ-মূর্খ। সে বেয়াদবই নয়; বিশ্ববেয়াদব। তার পক্ষেই মহান মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বিকৃতি ও দেশের স্থপতি সম্পর্কে এ ধরনের ধৃষ্ঠতাপূর্ণ বক্তব্য রাখা সম্ভব। সোমবার ওয়ার্কার্স পার্টি ঢাকা মহানগরের নেতৃবৃন্দ ও কর্মীদের এক সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

বৈঠকে বিমানমন্ত্রী মেনন বলেন, পাঁচ জানুয়ারি ২০১৪ সালের নির্বাচন ছিল মুক্তিযুদ্ধের অর্জন ও গণঅধিকার রক্ষা এবং সংবিধান ও সাংবিধানিক ধারা অব্যাহত রাখার নির্বাচন। গণতান্ত্রিক ধারা অব্যাহত রাখতে তখনকার বিরোধী দলের প্রতি নির্বাচনে অংশ নেয়ার জন্য বার বার আহ্বান জানানো হয়। কিন্তু বিএনপি ও তার রাজনৈতিক মিত্র জামায়াতে ইসলামী ঐ নির্বাচন বর্জন ও বানচাল করতে অপচেষ্টা চালায়। সারাদেশে সন্ত্রাসী তা-ব চালিয়ে, জনগণকে ভয় দেখিয়ে ভোট প্রদানে বাধা দেয়। কিন্তু তাদের সেই চক্রান্ত জনগণ সফল হতে দেয়নি। দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন গণতান্ত্রিক ব্যবস্থার জন্য অনেক তাৎপর্যপূর্ণ।

পাঁচ জানুয়ারি নির্বাচনের এক বছর পূর্তি উপলক্ষে দেশব্যাপী পার্টি ঘোষিত ‘মুক্তিযুদ্ধের অর্জন ও গণঅধিকার রক্ষা’ দিবস পালনের কর্মসূচী ঢাকায় ১৪৪ ধারা জারির কারণে বাতিল করা হয়। এ প্রসঙ্গে মেনন বলেন, সেদিন বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও তার মিত্র জামায়াতে ইসলামী নির্বাচন বর্জনের মাধ্যমে গণতন্ত্রকে হত্যা করে অসাংবিধানিক ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠার ষড়যন্ত্র করেছিলেন। সেদিন আন্দোলনের নামে সন্ত্রাসী কর্মকা- চালিয়ে দম হারিয়েছিলেন। আজ এক বছর পর আবার দম নিয়ে ‘গণতন্ত্র হত্যা দিবস’ কর্মসূচী পালনের নামে নৈরাজ্য সৃষ্টির পাঁয়তারা করছিলেন। কিন্তু তার এই কর্মসূচীতে জনগণ সাড়া দেয়নি। ঢাকায় তার দলের নেতাকর্মীরা পূর্বের ন্যায় আন্দোলনের হুমকিধমকি দিয়ে গা-ঢাকা দিয়েছে। অন্যদিকে তার রাজনৈতিক মিত্র জামায়াত-শিবির চোরাগুপ্তা সন্ত্রাসী হামলা চালিয়ে মানুষ হত্যা করছে। ওয়ার্কার্স পার্টির নেতাকর্মীরা আন্দোলনের নামে নৈরাজ্য সৃষ্টির যে কোন চক্রান্ত-ষড়যন্ত্র জনগণকে সংগঠিত করে প্রতিরোধ করবে।

সভায় সভাপতিত্ব করেন ওয়ার্কার্স পার্টি ঢাকা মহানগর সভাপতি আবুল হোসাইন। বক্তব্য রাখেন পার্টির কেন্দ্রীয় যুবনেতা মোস্তফা আলমগীর রতন, সাব্বাহ আলী খান কলিন্স, তপন দত্ত, মহানগর সাধারণ সম্পাদক কিশোর রায়, মহানগর নেতা আলী সিকদার, মুর্শিদা আখতার নাহার প্রমুখ।