২৩ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

এখনও শীর্ষে ফেসবুক


এখনও শীর্ষে ফেসবুক

আইটি ডট কম ডেস্ক ॥ সোশাল মিডিয়ার জগতে ফেসবুক এখন শীর্ষে। জাতীয় থেকে ব্যক্তি জীবনের সকল আবেগের এক অসাধারণ প্ল্যাটফর্ম এই ফেসবুক, সেটা প্রমাণ হয়ে গেছে। ব্যবহারকারীর সংখ্যা আর বিশ্ববাজারে বিস্তারের হিসেবে সমসাময়িক সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলোর সঙ্গে ফেসবুকের দূরত্ব অনেকটাই। শীর্ষ সোশ্যাল মিডিয়া হিসেবে নিজেদের অবস্থান নিশ্চিত করে প্রযুক্তির নতুন খাতে ব্যবসা বিস্তারে এখন উঠেপড়ে লেগেছে ফেসবুক।

২০১৪ সাল অনেক দিক থেকেই ছিল প্রতিষ্ঠান হিসেবে ফেসবুকের জন্য সফল একটা বছর। ২০১৫ সাল কেমন হবে তাদের। ২০১৪ সালে একাধিক নতুন প্রকল্প নিয়ে ফেসবুকের কর্মতৎপরতায় একটা ব্যাপার পরিষ্কার, কেবল ‘লাইক আর শেয়ারের’ মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকতে রাজি নন জোকারবার্গ। হালের ‘টক অব টাউন’ ভার্চুয়াল রিয়ালিটি (ভিআর) থেকে শুরু করে বিশ্বের প্রত্যন্ত অঞ্চলের নতুন বাজারের দখলটাও চাই তার।

চলতি বছরে ফেসবুকের মালিকানায় গেছে জনপ্রিয় মেসেজিং এ্যাপ ‘হোয়াটসএ্যাপ।’ আলোচিত ভিআর স্টার্টআপ অকুলাসও এখন ফেসবুকের নিয়ন্ত্রণে। আর বিশ্বের প্রত্যন্ত অঞ্চলে ইন্টারনেট সেবা পৌঁছে দিতে ড্রোন ব্যবহারের পরিকল্পনা শুনে ‘চোখ ছানাবড়া’ হয়ে গিয়েছিল খোদ প্রযুক্তি জগতের অনেকেরই।

সব মিলিয়ে ২০১৫ সাল ফেসবুকের জন্য হবে মেসেজিং এ্যাপ, ড্রোন আর ভার্চুয়াল রিয়ালিটি প্রযুক্তির বছর।

চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে ফেসবুক জনপ্রিয় মেসেজিং এ্যাপ ‘হোয়াটসএ্যাপ’ কিনে নেয় ১ হাজার ৬শ’ কোটি ডলারের বিনিময়ে। হোয়াটসএ্যাপের নিয়মিত ব্যবহারকারীর সংখ্যা এখন ৬০ কোটি। হোয়াটসএ্যাপ কিনে কেবল ব্যবসায়িক দিক থেকেই লাভবান হয়নি ফেসবুক, বেড়েছে ব্যবহারকারীর সংখ্যাও।

মজার ব্যাপার হচ্ছে হোয়টাসএ্যাপের আগে জোকারবার্গের চোখ পড়েছিল ফটো মেসেজিং এ্যাপ ‘স্ন্যাপচ্যাট’-এর দিকে। কিন্তু ফেসবুকের তিন শ’ কোটি ডলারের প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছিল স্ন্যাপচ্যাট কর্তৃপক্ষ। ফেসবুক, স্ন্যাপচ্যাট আর হোয়াটসএ্যাপের এই ‘ত্রিভুজ প্রেমকাহিনী’ অবশ্য ‘ট্র্যাজেডিতে’ শেষ হয়নি।

ব্যবহারকারীদের কাছে নিজেদের জনপ্রিয়তা ধরে রেখেছে স্ন্যাপচ্যাট। ফটো মেসেজিং এ্যাপটিকে টেক্কা দিতে ইনস্টাগ্রামে ‘বোল্ট’ নামের নতুন ফিচার চালু করেছিল ফেসবুক। তবে এই ফিচার দিয়েও স্ন্যাপচ্যাপ ব্যবহারকারীদের ইনস্টাগ্রামে আগ্রহী করাতে পারেনি প্রতিষ্ঠানটি। তবে জোকারবার্গ যে সহজে হাল ছাড়ছেন না সেটা নিশ্চিতÑ জানিয়েছে ম্যাশএবল। ২০১৫ সালেও মেসেজিং এ্যাপের বাজারে স্ন্যাপচ্যাটকে টেক্কা দেয়ার জন্য ফেসবুকের চেষ্টা অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছে সাইটটি।

ভার্চুয়াল রিয়ালিটি , শুধু হোয়াটসএ্যাপ নয়, চলতি বছর ২শ’ কোটি ডলারের বিনিময়ে আলোচিত ভিআর স্টার্টআপ অকুলাসও কিনে নিয়েছে ফেসবুক। ফেসবুকের এই পদক্ষেপে অনেক প্রযুক্তি বাজার বিশ্লেষকই বিস্ময় প্রকাশ করেন। এ ব্যাপারে ফেসবুক প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জোকারবার্গ জানিয়েছেন, এখনই অকুলাস দিয়ে বাজারে সাফল্য পাওয়ার আশা নেই বরং ভবিষ্যতের সবচেয়ে প্রতিশ্রুতিশীল কম্পিউটিং প্ল্যাটফর্ম হবে অকুলাস, আর তাই প্রতিষ্ঠানটির পেছনে এই বিপুল পরিমাণ বিনিয়োগ।

তবে অকুলাস কেনার পর বিশ্বব্যাপী ডেভেলপারদের সঙ্গে ফেসবুকের সখ্য আরও জোরদার হয়েছে বলে জানানো হয়েছে। সেপ্টেম্বর মাসে আয়োজিত ‘অকুলাস কানেক্ট ডেভেলপার্স কনফারেন্স’ আয়োজন করেছিল ফেসবুক। এই একটি ইভেন্ট থেকে ডেভেলপারদের মধ্যে ফেসবুক যতটা ইতিবাচক ভাবমূর্তি সৃষ্টি করতে পেরেছে তা গত কয়েক বছরে সম্ভব হয়নি ।

ইন্টারনেট ড্রোন , ফেসবুক ব্রিটিশ সৌরশক্তি চালিত ড্রোন নির্মাতা ‘এ্যাসেন্টা’ কেনার পর বাজার বিশ্লেষকদের বিস্ময়টা ছিল আরও বেশি। তবে এই পদক্ষেপের সহজ ব্যাখ্যাও দিয়েছে ফেসবুক। বিশ্বের ইন্টারনেট সেবা বঞ্চিত অঞ্চলে ড্রোনের মাধ্যমে ওয়্যারলেস ইন্টারনেট সেবা পৌঁছে দেয়ার ‘ইন্টারনেট ডটঅর্গ’ প্রকল্পের জন্যই এ্যাসেন্টা কিনেছে ফেসবুক।

ফেসবুকের কানেক্টিভিটি ল্যাব প্রধান ইয়েল ম্যাগুয়্যার বলেছেন যে , ২০১৫ সালেই কানেক্টিভিটি ড্রোন আকাশে ওড়ানোর স্বপ্ন দেখছেন তারা। আর তাই এই বছরে পরিবর্তন দেখা যেতে পারে নিউজ ফিড, সার্চ সিস্টেম ও মোবাইল এ্যাপ্লিকেশনে। ফেসবুক এই বছরেও থাকবে নানান আলোচনায়।