২১ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

আজ পল্লীকবি জসীম উদ্দীনের জন্মবার্ষিকী


আজ ১ জানুয়ারি পল্লীকবি জসীম উদ্দীনের ১১২তম জন্মবার্ষিকী। বাংলার পল্লী অঞ্চলের মানুষের জীবন, সংস্কৃতি, মানুষের মুক্তির সংগ্রামসহ নানা বিষয়ে লিখে সৃজনশীলতার পরিচয় দেয়ার ফলে তিনি পল্লী কবির উপাধি লাভ করেন। কবি জসীম উদ্দীন ছোটবেলা থেকেই সাহিত্যচর্চা করেন। লেখালেখির দীর্ঘ জীবনে তিনি একাধারে কবিতা, নাটক, কাব্যনাট্য, গান, উপন্যাস, স্মৃতিচারণ, গল্প, ভ্রমণ সাহিত্য ও লোকসাহিত্য সংগ্রহে কাজ করেন। এ সব ক্ষেত্রে কবির অসংখ্য বই বাংলাসাহিত্যে অমর সৃষ্টি হিসেবে রয়েছে। খবর বাসস’র।

তিনি ১০ হাজার লোক ঙ্গীত সংগ্রহ করেন। এর মধ্যে অনেকগুলো জারি গান ও মুর্শিদী গানের সঙ্গে সমন্বয় করেন। কবি কলেজের ছাত্রাবস্থায় লেখেন বিখ্যাত কবিতা ‘কবর’।

কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ে থাকাকালীন এ কবিতা বাংলা পাঠ্যবইয়ে স্থান পায়। এই কবিতাসহ কবির শত শত কবিতা পাঠক সমাদৃত হয়। তাঁর ‘নকশী কাঁথার মাঠ’ কাব্যনাট্যটি এ দেশের নাটকের জগতে বহুল জনপ্রিয় নাটক। এ ছাড়া ‘সুজন বাধিয়ার ঘাট’ কবিতাটি বিভিন্ন ভাষায় অনূদিত হয়।

জসিম উদ্দীন ১৯০৩ সালে ফরিদপুর জেলার তাম্বুলখানা গ্রামে মাতুলালয়ে জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবা আনসারুদ্দীন মোল্লা ছিলেন একজন স্কুলশিক্ষক। মা আমিনা খাতুন ওরফে রাঙাছুট। ফরিদপুর ওয়েলফেয়ার বিদ্যালয়ে তিনি প্রাথমিক শিক্ষা গ্রহণ করেন। ১৯২১ সালে ফরিদপুর জিলা স্কুল থেকে মেট্রিকুলেশন পরীক্ষায় পাস করেন। ১৯২৪ সালে রাজেন্দ্র কলেজ থেকে আইএ পাস করেন। কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ১৯২৯ সালে বাংলায় ডিগ্রী এবং ১৯৩১ সালে এম এ পাস করেন। পরে ১৯৩১ সাল থেকে ১৯৩৭ সাল পর্যন্ত তিনি দীনেশ চন্দ্র সেনের সঙ্গে লোকসাহিত্য সংগ্রাহক হিসেবে কাজ করেন।