২২ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

সিরাজদিখানে পাগলা কুকুরের কামড়ে আহত ২০


স্টাফ রিপোর্টার, মুন্সীগঞ্জ ॥ সিরাজদিখান উপজেলার খাসমহল গ্রামে পাগলা কুকুরের কামড়ে কমপক্ষে ২০ ব্যক্তি আহত হয়েছে। আহতদের পাঁচ জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, সোমবার রাত ১০টা পর্যন্ত একটি পাগলা কুকুর গ্রামের এ প্রান্ত থেকে অপর প্রান্ত পর্যন্ত কমপক্ষে ২০ ব্যক্তিকে কামড় দেয়। পাগলা কুকুরের কামড়ে গুরুতর আহত রাজিয়া বেগম (৩৬), মোহাম্মদ হোসেন (৩০), মোহাম্মদ জহির (৩২), নিখিল (৬) ও জহিরুল ইসলামকে (৪৭) ঢাকার মহাখালী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পাগলা কুকুরের কামড়ে গ্রামবাসী আতঙ্কিত হয়ে পড়ে। অবশেষে গ্রামবাসী একত্রিত হয়ে সোমবার রাত ১১টার দিকে কুকুরটিকে ধাওয়া করে লাঠিসোটা দিয়ে পিটিয়ে হত্যা করা হয়।

এ ব্যাপারে সিরাজদিখান উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ উলফাৎ বেগম জানান, ঘটনাটি আমি জানি। আহত অনেক রোগীই আমাদের স্বাস্থ্য কেন্দ্রে এসেছিল। কিন্তু প্রয়োজনীয় ভ্যাকসিন না থাকায় আমরা তাদের চিকিৎসা দিতে পারিনি। তবে সকলকে ঢাকায় মহাখালী হাসপাতালে গিয়ে এ ব্যাকসিন নেয়ার পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

কুষ্টিয়ায় ভুয়া সেকেন্ড লেফটেন্যান্টসহ আটক তিন

নিজস্ব সংবাদদাতা, কুষ্টিয়া, ৩০ ডিসেম্বর ॥ জেলায় সেনাবাহিনীর ভুয়া সেকেন্ড লেফটেন্যান্টসহ ৩ প্রতারককে আটক করেছে র‌্যাব। সোমবার গভীর রাত পর্যন্ত জেলার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়।

এ সময় তাদের কাছ থেকে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর নকল পরিচয়পত্র, নগদ ৩৩ হাজার টাকা ও ৩টি মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়। মঙ্গলবার দুপুরে র‌্যাব-১২ কুষ্টিয়া ক্যাম্পের কমান্ডার আলী হায়দার চৌধুরী এক সংবাদ সম্মেলনে জানান, সোমবার বিকেল সাড়ে ৪টায় শহরের এনএস রোডের মৌবনের সামনে থেকে প্রতারক চক্রের ভুয়া সেকেন্ড লেফটেন্যান্ট মাহাবুব হোসেন সবুজ (১৯) ও মিন্টু হোসেনকে (৩৩) আটক করা হয়।

পরে তাদের কাছ থেকে সেনাবাহিনীর পোশাক পরিহিত একটি ছবি সংযুক্ত (সেকেন্ড লেফটেন্যান্ট) পরিচয়পত্রসহ কয়েকটি চাকরির আবেদনপত্র, ৩৩ হাজার টাকা ও ৩টি মোবাইল ফোনসেট উদ্ধার করা হয়। তাদের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী রাত ৩টায় কুষ্টিয়ার মজমপুরের শিল্পী হোটেলের সামনে থেকে আনোয়ার হোসেন (২৫) নামে প্রতারক চক্রের আরেক সদস্যকে আটক করা হয়। আটকরা দীর্ঘদিন ধরে প্রতারণার মাধ্যমে সেনা, বিমান, নৌ ও পুলিশবাহিনীতে চাকরি দেয়ার কথা বলে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়।

আটক মাহাবুব হোসেন সবুজ কুষ্টিয়ার কুমারখালীর জয়নাবাদ বাসিন্দাপাড়া গ্রামের আবুল হোসেনের ছেলে, মিন্টু হোসেন যশোর কোতয়ালি থানার নওদাগাঁ গ্রামের জসিম মোল্লার ছেলে এবং আনোয়ার হোসেন একই থানার খয়েরতলা গ্রামের মৃত আব্দুল লতিফের ছেলে। তাদের বিরুদ্ধে যথাযথ আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলেও জানান তিনি।