২০ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

প্রবল তুষারপাতে বিপর্যস্ত ব্রিটেন ও ফ্রান্স


প্রবল তুষার-ঝড় আর কনকনে ঠা-ার জেরে বড়দিনের পর থেকেই বিপর্যস্ত গোটা ব্রিটেন। একের পর এক বিমান, ট্রেন আর ফেরি বাতিলের খবরে জেরবার যাত্রীরা। বিভিন্ন সড়কে জমেছে প্রচুর পরিমাণ বরফ। ফলে উৎসবের মৌসুমে গাড়ি নিয়েও আপাতত বেরোতে পারছেন না জনগণ। আবহাওয়া দফতর সতর্ক করেছে যে, আগামী দু’দিন তুষারপাত আরও বাড়বে। খবর আনন্দবাজার ও বিবিসি অনলাইনের।

এদিকে ফ্রান্সের আলপসে প্রচ- তুষারপাতের ঘটনায় ১৫ হাজার গাড়ি আটকা পড়েছে। স্কটল্যান্ড, উত্তর আয়ারল্যান্ড, ওয়েলস আর ইংল্যান্ডের উত্তর ভাগের অবস্থা সবচেয়ে শোচনীয়। ইংল্যান্ডের ইয়র্কশায়ারের লিড্স ব্র্যাডফোর্ড আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর আর লিভারপুলের জন লেনন বিমানবন্দর বন্ধ ছিল দীর্ঘ সময়। ম্যানচেস্টার বিমানবন্দরেও প্রত্যেকটি বিমান দেরিতে ছাড়ে। ফলে বিমানবন্দরগুলোতে যাত্রীদের ভিড় সামলাতে রীতিমতো হিমশিম খেতে হচ্ছে কর্তৃপক্ষকে। লরা থর্নহিল নামে এক বিমানযাত্রী টুইট করেছেন, ঘণ্টার পর ঘণ্টা বিমানে বসে আছি। কেউ কোনও খবর দিচ্ছে না। ঝড়ের জন্য বন্ধ রাখা হয়েছে ফেরি চলাচলও। কেন্টের ডোভার বন্দর কর্তৃপক্ষ জানায়, ইংলিশ চ্যানেলে ফেরি পরিবহন ব্যবস্থা পুরোপুরি বন্ধ রাখা হয়েছে। খুব দরকার ছাড়া সাধারণ মানুষকে গাড়ি নিয়েও বেরোতে বারণ করছে প্রশাসন। শেফিল্ড থেকে লন্ডনগামী একটি বাসের সকল যাত্রীকে কাল রাতে একটি গির্জায় আশ্রয় নিতে হয়েছে। এক যাত্রী জানান, দক্ষিণ ইয়র্কশায়ারের রাস্তায় এতটাই বরফ জমেছে যে বাস আর এগোতে পারেনি।

ফ্রান্সে আটকা পড়েছে ১৫ হাজার গাড়ি ॥ ফরাসী আলপসে প্রচ- তুষার-ঝড়ে প্রায় ১৫ হাজার গাড়ি চালক আটকা পড়েছে। বৈরী আবহাওয়ার কারণে কর্তৃপক্ষ জরুরী আশ্রয় শিবির খুলতে বাধ্য হয়েছে। ভ্রমণকারীদের ঘরে থাকার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে। ফ্রান্সের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলের সাভোই এলাকার স্কি রিসোর্টে প্রবল তুষারপাত হয়েছে। এ কারণে এখানে যারা ছুটি কাটাতে এসেছিলেন তারা দ্রুত স্কি রিসোর্ট ছেড়ে অন্যত্র চলে যাচ্ছে।