২৩ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৪ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

১৬২ আরোহীসহ ইন্দোনেশীয় বিমান নিখোঁজ


ইন্দোনেশিয়া থেকে সিঙ্গাপুরগামী এয়ার এশিয়ার একটি বিমান রবিবার নিখোঁজ হয়েছে। বিমানটিতে ১৬২ জন আরোহী ছিল।

ইন্দোনেশিয়ার পরিবহন মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র জে এ বারাতা বার্তা সংস্থা এএফপি’কে বলেন, স্থানীয় সময় সকাল সাতটা ৫৫ মিনিটে জাকার্তার নিয়ন্ত্রণ কক্ষের সঙ্গে এয়ার এশিয়ার যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। খবর এএফপির।

এয়ার এশিয়ার এ৩২০-২০০ নামের বিমানটি স্থানীয় সময় সকাল ৫টা ২০ মিনিটে পূর্ব জাভার সুরাবায়ার জুয়ান্দা বিমানবন্দর ত্যাগ করে। বিমানটির স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে আটটায় সিঙ্গাপুরে পৌঁছানোর কথা ছিল। ইন্দোনেশিয়ার বিমান পরিবহন বিষয়ক মহাপরিচালক দজোকো মুরজাতমোদজো বলেন, বিমানটিতে সাতজন ক্রু ও ১৫৫ জন যাত্রী ছিলেন। যাত্রীদের মধ্যে ১৩৮ জন প্রাপ্তবয়স্ক ও ১৬ শিশু রয়েছে। নিখোঁজ যাত্রীদের মধ্যে ১৪৯ জন ইন্দোনেশিয়ার নাগরিক। বাকি ছয় যাত্রীর মধ্যে তিনজন কোরিয়ার নাগরিক। এ ছাড়া মালয়েশিয়া, ব্রিটেন ও সিঙ্গাপুরের একজন করে নাগরিক রয়েছেন।মালয়েশিয়াভিত্তিক বিমান সংস্থা এয়ার এশিয়া বলেছে, কিউজেড ৮৫০১ ফ্লাইটটির সন্ধানে অভিযান চলছে। বিমানসংস্থা বলেছে, ‘এই মুহূর্তে দুর্ভাগ্যক্রমে বিমানের আরোহীদের সম্পর্কে আমরা কোন তথ্য জানাতে পারছি না। তবে তথ্য পাওয়া মাত্রই আমরা আপনাদের জানিয়ে দেব।’ এয়ার এশিয়া আরো জানায়, এই মুহূর্তে বিমানটির সন্ধানে অভিযান চলছে এবং এয়ার এশিয়া উদ্ধার অভিযানে পূর্ণাঙ্গ সহায়তা করছে। জাভা সাগরের ওপরে থাকার সময় নিয়ন্ত্রণ কক্ষের সঙ্গে বিমানটির যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়। ইন্দোনেশিয়ার নিয়ন্ত্রণকক্ষের কর্মকর্তা হাদি মোস্তফা জানান, জাভা ও কালিমান্তান দ্বীপের মধ্যবর্তী ওই জায়গায় বিমানটির সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়। যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হওয়ার আগে বিমানটি নির্ধারিত পথে ছিল না। ওই সময় আকাশ মেঘলা ছিল।

এদিকে হোয়াইট হাউস বলেছে, তারা এয়ার এশিয়ার বিমান নিখোঁজ হওয়ার বিষয়টি পর্যবেক্ষণ করছে এবং মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা এ বিষয়ে ব্রিফ করেছেন।

হোয়াইট হাউসের মুখপাত্র এরকি শুলজ বলেন, ‘এয়ার এশিয়া ফ্লাইট ৮৫০১ নিয়ে ওবামা ব্রিফ করেছেন এবং হোয়াইট হাউস কর্মকর্তারা পরিস্থিতির ওপর গভীরভাবে নজর রাখবেন।’

সিঙ্গাপুর বেসামরিক বিমান সার্ভিস জানিয়েছে, বিমানটি ইন্দোনেশিয়ার আকাশে থাকার সময়ই জাকার্তার বিমান নিয়ন্ত্রণ কক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। এদিকে অপর একটি খবরে জানানো হয়েছে, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, ইন্দোনেশিয়ার পূর্ব দিকের বেলিটাং দ্বীপে বিমানটি বিধ্বস্ত হয়েছে। সেখানে বিমানের ধ্বংসাবশেষ দেখতে পাওয়া গেছে। তবে কর্তৃপক্ষ নিশ্চিতভাবে কিছু জানায়নি।