২১ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

ধসে পড়ার পর গাইবান্ধায় ৪৫ বছরেও পুনর্নির্মাণ হয়নি মঠ কুড়ার সেতু


নিজস্ব সংবাদদাতা, গাইবান্ধা, ২৭ ডিসেম্বর ॥ গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার শোভাগঞ্জ বাজার থেকে কে কৈ কাশদহ তাঁতীপাড়া হয়ে সাদুল্যাপুরের নলডাঙ্গা বন্দর সড়কে মঠের কুড়ায় গত ৪৫ বছরেও ব্রিজ পুনর্নির্মাণের কাজ হাতে নেয়া হয়নি। ফলে ওই পথে চলাচলকারী লোকজনকে সীমাহীন দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। সংশ্লিষ্ট এলাকার লোকজন জানিয়েছে, স্বাধীনতার আগে মঠের কুড়ায় একটি পাকা সেতু ছিল। ১৯৬৯ সালের শেষ দিকে সেতুটি ধসে পড়লে সেটি আর পুনর্নির্মাণ করা হয়নি। ওই এলাকার বাসিন্দারা মঠের কুড়ায় একটি সেতু নির্মাণের জন্য উপজেলা পরিষদ, জেলা প্রশাসক এবং স্থানীয় সরকার কর্তৃপক্ষের কাছে বহুবার আবেদন জানিয়েও কোন সাড়া পায়নি। ফলে শুকনো মৌসুমে খালের পানি শুকিয়ে গেলে নিচ দিয়ে মানুষ হেঁটে অপর পাড়ে গিয়ে উঠতে পারে, কিন্তু বর্ষার সময় খালে পানি ভর্তি থাকার কারণে চলাচলের পথ বন্ধ হয়ে যায়। ফলে ওই পথে চলাচলকারী লোকজনদের ৫ কিমি ঘুরে নলডাঙ্গা-শোভাগঞ্জ যাতায়াত করতে হয়। এ পরিস্থিতিতে জনগণের দাবির মুখে বর্তমান স্থানীয় সংসদ সদস্য অবসরপ্রাপ্ত কর্নেল ডাঃ আব্দুল কাদের খান মঠের কুড়া খালের ওপর সেতু নির্মাণের আশ্বাস দিলে এক পর্যায়ে তিনি নিজ উদ্যোগে সেখানে একটি হালকা সেতু নির্মাণের পরিকল্পনা নেন। ওই খালের ওপর তিনি কংক্রিটের খুঁটি বসিয়ে অবশিষ্ট কাজ শেষ না করেই তা নির্মাণ বন্ধ রাখেন। ফলে জনগণের যে দুর্ভোগ তা রয়েই গেছে।

রাজৈর পৌর নির্বাচন স্থগিত ॥ উপজেলা কার্যালয় ঘেরাও

নিজস্ব সংবাদদাতা, মাদারীপুর, ২৭ ডিসেম্বর ॥ মাত্র একদিন আগে শুক্রবার সন্ধ্যায় রাজৈর পৌরসভা নির্বাচন স্থগিত করা হয়েছে। এ ঘটনায় রাত ৭টার দিকে রাজৈর উপজেলা কার্যালয় ঘেরাও করে দুই সহস্রাধিক বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী।

জানা গেছে, রবিবার রাজৈর পৌরসভা নির্বাচন অনুষ্ঠানের নির্ধারিত দিন ছিল। কিন্তু নির্বাচনের একদিন আগে শুক্রবার সন্ধ্যায় নির্বাচন কমিশন থেকে রাজৈর পৌরসভা নির্বাচন অনিবার্য কারণ দেখিয়ে স্থগিত করা হয়। এ ঘোষণা প্রার্থীরা জানার পরই বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী রাজৈর উপজেলা কার্যালয় ঘেরাও করে।

বরিশালে চার শ’ যাত্রী নিয়ে লঞ্চের যাত্রা বাতিলে চরম ভোগান্তি

স্টাফ রিপোর্টার, বরিশাল ॥ বরিশাল থেকে ঢাকাগামী লঞ্চ এম.ভি দ্বীপরাজ কীর্তনখোলা নদীর বেলতলা নামকস্থানে চার শ’ যাত্রী নিয়ে আটকা পড়ায় শুক্রবার রাত সাড়ে দশটার দিকে যাত্রা বাতিল করা হয়েছে। এতে যাত্রীদের চরম ভোগান্তি পোহাতে হয়েছে। বরিশাল নদীবন্দরের নৌ নিরাপত্তা ও ট্রাফিক বিভাগের উপ-পরিচালক আবুল বাশার মজুমদার জানান, বরিশাল থেকে রাত সাড়ে নয়টার দিকে চার শ’ যাত্রী নিয়ে দ্বীপরাজ লঞ্চ ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা হয়। পথিমধ্যে কীর্তনখোলা নদীর বেলতলা নামকস্থানে লঞ্চটি তীরে উঠে যায়। সূত্রে আরও জানা গেছে, লঞ্চের মাস্টার আক্তারুজ্জামানের অবহেলার কারণে লঞ্চটি তীরে উঠে গেছে।