২০ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

শীতে বেড়েছে মাংসের দাম


অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ তীব্র শীতে হাঁসের মাংসের সঙ্গে চিতই পিঠা ভোজনবিলাসীর কাছে বাড়তি কিছু! আর তাই মাংসের বাজারে এখন হাঁসের চাহিদা সবচেয়ে বেশি। প্রতিজোড়া মাঝারি সাইজের হাঁস বিক্রি হচ্ছে ৮০০-১০০০ টাকায়। কয়েকদিন আগেও তা ৫০০-৭০০ টাকায় পাওয়া যেত। শীতকালীন উৎসব বনভোজন ও বিয়ে-শাদিসহ বিভিন্ন সামাজিক কর্মকা-ের জন্য বেড়েছে মুরগির চাহিদা। দাম বেড়ে প্রতিকেজি ব্রয়লার মুরগি বিক্রি হচ্ছে ১৪৫-১৫০ টাকায়, যা গত সপ্তাহে বিক্রি হয়েছে ১২৫-১৩০ টাকায়। লেয়ার মুরগি কেজিতে ৫ টাকা বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ১৬০-১৬৫ টাকায়। অর্থাৎ এক সপ্তাহের ব্যবধানে কেজিতে বেড়েছে ২০ থেকে ২৫ টাকা। তবে আগের দামে গরুর মাংস ৩০০ টাকা এবং খাসির মাংস ৪৮০-৫০০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। সব মিলিয়ে শীতে মাংসের বাজার বেশ চড়া।

শুক্রবার রাজধানীর মালিবাগ, খিলগাঁওসহ বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা যায়, মাংস ছাড়া প্রায় সব ধরনের পণ্যের দাম স্থিতিশীল রয়েছে। কমেছে শীতকালীন সব সবজির দাম। চাল, ডাল, আটা, ভোজ্যতেল, চিনি এবং ডিমের দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। এছাড়া ভারতীয় পেঁয়াজ কেজিতে ২ টাকা বেড়ে ৪০-৪২ টাকা, দেশী পেঁয়াজ ৪০-৪৫ টাকা, দেশী কাঁচাপেঁয়াজ ৩৫-৩৬ টাকা, দেশী আদা ১২০-১২৫ টাকা এবং চায়না আদা ১৭০-১৮০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

এছাড়া প্রতিকেজি খোলা চিনি ৪৬-৪৭ টাকা, প্যাকেট চিনি ৫০ টাকা, আটা ৩২ টাকা এবং প্রতিলিটার খোলা সয়াবিন তেল ৯০-৯২ দরে বিক্রি হতে দেখা গেছে। এছাড়া ফার্মের মুরগির লাল ডিম ৩০ টাকা এবং হাঁসের ডিম ৪০ টাকা হালি বিক্রি হয়েছে।

বনভোজনের মৌসুম চলছে এখন। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, অফিস, পাড়া-মহল্লার সমিতি, ক্লাব বনভোজনে যাচ্ছে। এ বনভোজন মৌসুমের প্রভাব পড়েছে মুরগির বাজারে। জানতে চাইলে এ প্রসঙ্গে কাপ্তান বাজারের হাঁস-মুরগি বিক্রেতা জাহিদ বলেন, বনভোজনের কারণে এখন মাংসের চাহিদা বাড়ছে। এছাড়া তীব্র শীতের কারণে ব্রয়লার মুরগির উৎপাদন কমে গেছে। রাজধানীতে সরবরাহ কমে যাওয়ায় ব্রয়লার ও লেয়ার মুরগির দাম বেড়েছে। তিনি বলেন, শীতকালে সবাই হাঁসের মাংস খেতে চায়। এ কারণে এখন হাঁসের চাহিদা ও দাম সবচেয়ে বেশি। চাহিদা বাড়ার কারণে মুরগির পাশাপাশি হাঁসও বেশি পরিমাণে রাখা হচ্ছে। প্রতিজোড়া হাঁস বিক্রি হচ্ছে ৮০০-১০০০ টাকা। এছাড়া প্রতিটি রাজহাঁস ১০০০ থেকে ১৫০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

বাজার ঘুরে দেখা গেছে, সবজির বাজারে প্রতিপিস ফুলকপি ২০ টাকা, বাঁধাকপি ১৫-২০, নতুন আলু ২৫-২৮ টাকা, শালগম ৩০, করলা ৪০-৪৫, বেগুন ৩০, শিম ৩০, গাজর ৩০-৪০, মুলা ১২-১৫, শসা ৩০-৪০ ও কাঁচাকলা হালি ২০-২৫ টাকায় বিক্রি করা হচ্ছে।

সর্বাধিক পঠিত:
পাতা থেকে: