১৯ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

রাজধানীতে গৃহপরিচারিকার রহস্যজনক মৃত্যু ॥ দুই ব্যবসায়ী গুলিবিদ্ধ


স্টাফ রিপোর্টার ॥ রাজধানীর কামরাঙ্গীরচরে এক গৃহপরিচারিকার রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। সবুজবাগে এক গৃহবধূ আত্মহত্যা করেছে। গাবতলীর দ্বীপনগর পোড়া বস্তিতে অগ্নিকা-ে দগ্ধ এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। এদিকে গুলশানে মাদক ব্যবসায়ীর সহযোগীদের এলোপাতাড়ি গুলিতে দুই সহোদর গুলিবিদ্ধ হয়েছে। রামপুরা ওয়াপদা রোড এলাকায় চাঁদাবাজদের গুলিতে এক ব্যবসায়ী গুলিবিদ্ধ হয়েছে। খিলগাঁওয়ে অস্ত্র ও গুলিসহ দুই অপরাধীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। শুক্রবার পুলিশ ও মেডিক্যাল সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, শুক্রবার কামরাঙ্গীরচর নিজামবাগ এলাকার আবুল কাশেমের বাড়ির গৃহকর্মী মিনু আক্তারের (৪৫) মৃত্যু নিয়ে রহস্যের সৃষ্টি হয়েছে। সকালে পুলিশ ওই বাড়ি থেকে তার লাশ উদ্ধার করে স্যার সলিমুল্লাহ মেডিক্যাল কলেজ মর্গে পাঠায়। পুলিশ জানায়, নিহত মিনু আক্তার গর্ভবতী ছিলেন। দীর্ঘদিন ধরে তিনি নিজামবাগের আবুল কাশেমের বাড়িতে গৃহকর্মীর কাজ করতেন। সকালে তাকে ফ্যানের সঙ্গে গলায় ওড়না পেঁচানো ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তার মৃত্যু ঘটনা রহস্যজনক। তদন্ত চলছে। কি কারণে তিনি গর্ভবতী হয়েছেন। ময়নাতদন্তের পর আসল ঘটনা জানা যাবে। এ ব্যাপারে কামরাঙ্গীরচর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শেখ মুহসিন আলম জনকণ্ঠকে জানান, স্বামীর সঙ্গে রাগ করে মিনু আক্তার ওই বাড়িতে ঝিয়ের কাজ নেন। বৃহস্পতিবার গভীররাতে খাওয়া ধাওয়া শেষে তিনি ঘুমিয়ে পড়েন। পরেরদিন শুক্রবার সকালে ফ্যানের সঙ্গে গলায় ওড়না পেঁচানো তাঁর ঝুলন্ত লাশ দেখতে পেয়ে বাড়ির লোকজন পুলিশকে খবর দেন। পরে পুলিশ তাঁর লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মিটফোর্ড মর্গে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে শুক্রবার বিকেলে সুবজবাগ থানাধীন দক্ষিণ রাজারবাগের ৪৯/১ নম্বর বাড়ির ভাড়াটিয়া রেশমা বেগম (২০) নামে এক গৃহবধূ আত্মহত্যা করেছে। নিহতের বাবা শাহ আলম পেশায় রাজমিস্ত্রি ছিলেন। আর তাঁর স্বামীর নাম মোঃ সাগর ফকিরাপুলে একটি ছাপাখানায় কাজ করেন। নিহতের স্বামী সাগর জানান, দুপুরে তিনি কাজে ছিলেন। বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে প্রতিবেশীরা তাঁকে ফোন করে জানান, রেশমা ঘরের আড়ার সঙ্গে ওড়না পেঁচিয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। খবর পেয়ে তিনি ও রেশমার বাবা তাঁকে ঝুলন্ত অবস্থা থেকে নামিয়ে ঢামেক হাসপাতালে জরুরী বিভাগে আনেন। এ সময় কর্তব্যরত চিকিৎসক রেশমাকে মৃত ঘোষণা করেন। তবে কী কারণে রেশমা আত্মহত্যা করেছেন তা তিনি বলতে পারেননি। খবর পেয়ে পুলিশ তাঁর লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রাতে ঢামেক মর্গে পাঠায়।

অগ্নিদগ্ধ এক নারীর মৃত্যু ॥ রাজধানীর গাবতলীর দ্বীপনগর পোড়া বস্তিতে দগ্ধ চার জনের মধ্যে শান্তা আক্তার নামের এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। নিহত শান্তার স্বামীর নাম রানা। গ্রামের বাড়ি ঝালকাঠি জেলায়। উল্লেখ্য, বুধবার রাত সাড়ে ৯টায় ওই বস্তির একটি ঘর থেকে এ আগুনের সূত্রপাত ঘটে। ওই ঘটনায় শান্তা আক্তার ও তার মেয়ে মেয়ে বৃষ্টি আক্তার (৩), রুবেল (১২), আব্দুল গনি (৪৩) মারাত্মক দগ্ধ হয়। পরে তাদের উদ্ধার করে ঢামেক হাসপাতালে বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, শান্তার শরীরের ৯৮ ভাগ, বৃষ্টির ৩৩ ভাগ, রুবেলের ৫৮ ভাগ ও আবদুল গনির ৩৫ ভাগ পুড়ে যায়। এর মধ্যে শান্তা বৃহস্পতিবার গভীররাতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়। বাকি সবার অবস্থা আশঙ্কাজনক।

দুই ব্যবসায়ীসহ তিন জন গুলিবিদ্ধ ॥ পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বৃহস্পতিবার রাত ২টার দিকে গুলশানের শাহজাদপুরে এক চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ীর সহযোগীরা দুই ব্যবসায়ীকে এলোপাতাড়ি গুলি চালিয়েছে। পরে তাদের গুলিবিদ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করে ঢামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আহতরা হচ্ছেন মহিউদ্দিন (২৬) ও তার চাচাত ভাই রমজান (৩০)। আহত মহিউদ্দিন ইট বালু ব্যবসায়ীর পাশাপাশি ঠিকাদার। তিনি গুলশান ২ নম্বরের শাহজাদপুর এলাকার জিপি ক ৬১ নম্বর বাড়িতে সপরিবারে থাকেন। আহতের চাচাত ভাই আলী হাসেন বলেন, বৃহস্পতিবার রাত ২টার দিকে স্থানীয় মাদক ব্যবসায়ী কাশেমের লোকজন মোবাইলে ফোনে মহিউদ্দিন ও রমজানকে বাসা থেকে ডেকে নিয়ে যায়। বাসার অদূরে মাদক ব্যবসায়ী কাশেমের লোকজন তাদেরকে লক্ষ্য করে কয়েক রাউন্ড গুলি চালিয়ে পালিয়ে যায়।

অস্ত্রসহ দুই অপরাধী আটক ॥ বৃহস্পতিবার রাতে খিলগাঁওয়ের ‘সি’ ব্লক থেকে অস্ত্র ও গুলিসহ আল আমিন (২০) ও জসিম (২০) নামে দুই যুবককে আটক করেছে পুলিশ। শুক্রবার সকালে ডিএমপি’র জনসংযোগ বিভাগের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানা গেছে।