২৪ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৪ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

এশিয়ায় সেরা দশে সানজিদা ৭


এশিয়ায় সেরা দশে সানজিদা ৭

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ‘জাতীয় দলে প্রথমবারের মতো খেলেই এমন কৃতিত্ব, ভাবাই যায় না। অথচ সেটাই করে দেখাল সানজিদা। ওর কোচ হিসেবে আমি দারুণ খুশি ও গর্বিত। সিরিয়াসলি অনুশীলন চালিয়ে গেলে ওর ভবিষ্যত আরও অনেক উজ্জ্বল বলে মনে করি’Ñ কথাগুলো গোলাম রব্বানী ছোটনের। বাংলাদেশ অনুর্ধ-১৬ জাতীয় মহিলা ফুটবল দলের কোচ। বাংলাদেশের নারী ফুটবলের জন্য দারুণ খবর। চলতি বছরে ঢাকায় অনুষ্ঠিত হয়েছে এএফসি অনুর্ধ-১৬ মহিলা চ্যাম্পিয়নশিপ। এ আসরে থেকে এশিয়ার সেরা ১০ ফুটবলার বাছাই করেছে এএফসি। আর সেই তালিকায় নাম ওঠেছে বাংলাদেশের সানজিদা আক্তারের। সেখানে রয়েছেন তিনি সাত নম্বরে। অদ্ভূত মিল তাঁর জার্সি নম্বরের সঙ্গে। বাছাইপর্বে বাংলাদেশের মেয়েরা ভারত ও ইরানকে হারাতে না পারলেও জর্দান ও আরব আমিরাতকে হারায়। আর সেই লড়াইয়ে নেতৃত্ব দিয়ে সবার নজর কাড়ে ময়মনসিংহের কিশোরী সানজিদা আক্তার। তার অসাধারণ ক্রীড়া নৈপুণ্য মুগ্ধ করেছে এশিয়ান ফুটবল কনফেডারেশন (এএফসি) কর্তৃপক্ষকে। তাই সানজিদা ঠাঁই পেয়েছে সেরা দশজনের তালিকায়। তার অবস্থান সপ্তম।

গত অক্টোবরে ঢাকায় অনুষ্ঠিত এএফসি অনুর্ধ-১৬ মহিলা ফুটবলে সানজিদা একাই চারটি গোল করে বাংলাদেশের জার্সি গায়ে চাপিয়ে। যার মধ্যে জর্দানের বিপক্ষে একটি, ইরানের বিপক্ষে একটি ও আরব আমিরাতের বিপক্ষে দুটি।

এশিয়ার দেশগুলো তিনটি জোনে ভাগ হয়ে অংশ নিয়েছিল অনুর্ধ-১৬ চ্যাম্পিয়নশিপে। বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত হয়েছিল একটি জোনের খেলা। সব জোনের সেরা পারফরমারদের মধ্য থেকে ১০ জনকে বাছাই করে এএফসি।

সানজিদার এ খবরটি এত বড় ও গুরুত্বপূর্ণ, অথচ রবিবার এ খবরটি সংবাদমাধ্যমকে জানায়নি বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে)! সাংবাদিকদের খবরটা জানতে হয়েছে ব্যক্তিগত উদ্যোগে এএফসির ওয়েবসাইট ঘেঁটে! কোচ ছোটন জানান, সানজিদার এ সাফল্যের খবরটি তিনি সানজিদার সঙ্গে শেয়ার করতে পারেননি। কেননা, এই মুহূর্তে সানজিদা অবস্থান করছে ময়মনসিংহে এবং ওর মোবাইল নম্বর নেই তাঁর কাছে। ‘সানজিদার এই সাফল্য আমাদের বাংলাদেশের মহিলা ফুটবলের জন্য নিঃসন্দেহে প্রেরণাদায়ক সমাচার। এতে অন্যরাও ভাল খেলতে উৎসাহী হবে এবং অন্য মেয়েরাও ফুটবল খেলায় আসবে।’ ছোটন আরও বলেন, ‘আপনারা জানেন, আমি আগে থেকেই অনুর্ধ-১৬ মহিলা দল সম্পর্কে বাড়তি উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে আসছি। বলেছিলাম ঠিকমতো ও দীর্ঘমেয়াদে প্রশিক্ষণ পেলে এই দলটি অনেকদূর যাবে। শুধু সানজিদাই নয়, আমি তো মনে করি অদূর ভবিষ্যতে এই দলের আরও অনেকেই সানজিদার মতো টপ টেনে আসবে। সেই যোগ্যতা তাদের আছে।’ গত নবেম্বরে পাকিস্তানে গিয়ে সাফ মহিলা চ্যাম্পিয়নশিপে খেলে এসেছে বাংলাদেশ জাতীয় মহিলা ফুটবল দল। দলে সুযোগ পেয়েছিল সানজিদাও। কিন্তু জেএসসি পরীক্ষার কারণে পাকিস্তানে গিয়ে খেলা হয়নি তার। খেললে সানজিদা অনেক ভাল করত এবং একাধিক গোল করত বলে দৃঢ়বিশ্বাস ছোটনের।

সর্বাধিক পঠিত:
পাতা থেকে: