২০ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

জামালপুর স্থলবন্দরে পাথর আমদানি তিন মাসেও চালু হয়নি


নিজস্ব সংবাদদাতা, জামালপুর, ২১ ডিসেম্বর ॥ জেলার বকশীগঞ্জ উপজেলার কামালপুর স্থলবন্দরে তিন মাসেও চালু হয়নি পাথর আমদানি কার্যক্রম। এতে ব্যবসায়ীদের এলসি করা শত কোটি টাকা আটকা পড়েছে। এই স্থলবন্দর দিয়ে প্রতিদিন পাথরসহ বিভিন্ন পণ্য আমদানি-রফতানি হয়ে থাকে। দেশের সিকিভাগ পাথরের চাহিদা পূরণ হয় এ বন্দরের পাথর দিয়ে। মালামাল লোড আনলোডিং ও ক্র্যাশ করতে ৫ সহস্রাধিক নারী-পুরুষ শ্রমিক এখন বেকার জীবন অতিবাহিত করছেন।

একটি সূত্র জানায়, ভারতের আমদানি-রফতানিকারক ব্যবসায়ীরা তাদের পাহাড়ে পাথর উত্তোলন বাবদ বন বিভাগের রাজস্ব টাকা জমা দেয়নি। এ কারণে ভারতীয় ব্যবসায়ীরা পাথর রফতানি করতে পারছে না।

অপর একটি সূত্র জানায়, ভারতের মেঘালয় রাজ্যের গারোপাহাড় থেকে পাথর উত্তোলনের কারণে সেখানকার সমতলভূমিতে চাষাবাদ ব্যাহত হচ্ছে। তাই সমতলবাসী পাথর উত্তোলন বন্ধ করতে ও ক্ষতিপূরণ চেয়ে আদালতে মামলা দায়ের করেন। ফলে ৩ অক্টোবর থেকে কামালপুর স্থলবন্দর দিয়ে পাথর আমদানি বন্ধ রয়েছে।

স্থলবন্দর আমদানি-রফতানিকারক ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি কৃষিবিদ আব্দুল্লাহ আল মোকাদেছ রিপন জানান, ভারতের বন বিভাগ পাথর উত্তোলনে ছাড়পত্র না দেয়ায় কামালপুর স্থলবন্দরে পাথর আমদানি বন্ধ রয়েছে। দেড় শতাধিক ব্যবসায়ীদের পাথর আমদানি এলসি করা শত কোটি টাকা আটকা পড়ে রয়েছে। বসে বসে ব্যাংক ঋণের সুদ পরিশোধ করছেন তারা। বিষয়টি সমাধানে সরকারের উচ্চ পর্যায়ে কার্যকরী ব্যবস্থা নিতে হস্তক্ষেপ কামনা করছেন বন্দরের ব্যবসায়ী ও শ্রমিকরা।