২২ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

দায়বদ্ধতার জায়গা থেকে তরুণদের কাজ করতে হবে ॥ স্পিকার


স্টাফ রিপোর্টার ॥ বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গঠনে তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন জাতীয় সংসদের স্পীকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। তরুণদের উদ্দেশে তিনি বলেন, সমাজে পরিবর্তন আনতে হলে স্বপ্নদ্রষ্টা হওয়া যেমন প্রয়োজন, তেমনি সেই স্বপ্ন বাস্তবায়নে ত্যাগের মানসিকতাও তৈরি করতে হবে। তরুণ প্রজন্ম এগিয়ে এলে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গঠনের কাজ আরও দ্রুত বাস্তবায়িত হবে। সোমবার সকালে রাজধানীর সিরডাপ ইন্টারন্যাশনাল কনফারেন্স সেন্টারে ইয়ুথ ফোরামের ১৪ বছর পূর্তি উপলক্ষে আয়োজিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্পীকার এসব কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্পীকার বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্বাধীন বাংলাদেশের স্বপ্ন দেখেছিলেন। ৩০ লাখ শহীদ তাঁদের আত্মদানের মাধ্যমে সেই স্বপ্নকে বাস্তবে রূপ দিয়েছেন। বঙ্গবন্ধু নিজেও দেশের জন্য প্রাণ উৎসর্গ করেছেন। তাই তরুণ প্রজন্মকেও ব্যক্তিস্বার্থের উর্ধে উঠে দেশ ও মানুষের জন্য কাজ করতে হবে। ‘গাঁয়ের জোয়ান, হও আগুয়ান’ সেøাগান শীর্ষক দিনব্যাপী ‘ইয়ুথ পার্লামেন্টের’ উদ্বোধন করেন তিনি। ইয়ুথ ফোরামের সদস্যদের উদ্দেশ করে স্পীকার বলেন, স্বপ্ন থাকতে হবে, স্বপ্ন দেখতে হবে।

তিনি বলেন, দেশের সুষম উন্নয়নে ৬৪ জেলার যুবকদের নিয়ে কাজ করতে হবে। বিশেষ কোন গোষ্ঠী বা জেলা, উপজেলা নয়, কাজ করতে হবে সামগ্রিকভাবে। তরুণদের উদ্ভাবনী মেধা ব্যবহার করে সমাজের পশ্চাতপদ জনগোষ্ঠীর জন্য কাজ করতে হবে দায়বদ্ধতার জায়গা থেকে। এখনও হাওরাঞ্চলসহ দেশের বেশকিছু অঞ্চল আধুনিক সুযোগ-সুবিধার বাইরে রয়েছে। এসব জায়গার উন্নয়নকে প্রাধান্য দিয়ে, বিশেষ করে সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের কল্যাণে বেসরকারী যুব সংগঠনগুলোকেই প্রথমে এগিয়ে আসতে হবে। কাজ করতে হবে সুনির্দিষ্ট লক্ষ্য নিয়ে।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে যুব ও ক্রীড়া উপমন্ত্রী আরিফ খান জয় বলেন, তথ্য প্রযুক্তির এ যুগে তরুণদেরকে আরও চৌকস হতে হবে। তা না হলে দেশের তরুণরা বিশ্ব উন্নয়নের সুপার ট্রেনে উঠতে পারবে না। উপমন্ত্রী বলেন, আমরা সেই যুবক চাই, যে রোজগার করে, মা-বাবার কথা শোনে। ভাই-বোনের পাশে দাঁড়ায়। প্রতিবেশীর বিপদে এগিয়ে আসে। সমাজ গড়ে তুলে।

ইয়ুথ ফোরামের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) তানজিনা নওশীনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেনÑ পল্লী কর্ম সহায়ক ফাউন্ডেশনের (পিকেএসএফ) ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মোঃ আব্দুল করিম, সিরডাপের মহাপরিচালক (ডিজি) ড. সিসেপ এ্যাফেন্ডি, কানাডিয়ান হাই কমিশনের ভারপ্রাপ্ত কমিশনার ব্রায়ান অ্যালেমিকিন্ডার্স প্রমুখ। উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষে দেশের ৬৪ জেলা থেকে আগত ইয়ুথ ফোরামের সদস্যদের অংশগ্রহণে পর পর ৩টি সেশন অনুষ্ঠিত হয়। ‘কৃষিতে যুবক সমাজ’, ’স্বেচ্ছাশ্রমে যুবক সমাজ’ ও ‘সমাজ পরিবর্তনে যুবক সম্প্রদায়’ শীর্ষক এসব সেশনে সংশ্লিষ্ট বিষয়ের বিশেষজ্ঞরাও উপস্থিত ছিলেন।

সর্বাধিক পঠিত:
পাতা থেকে: