২৩ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ২ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

ঋণ কোন দয়া নয়, এটা উদ্যোক্তাদের অধিকার ॥ মুহিত


স্টাফ রিপোটার সিলেট অফিস ॥ অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেছেন, বিশ্বে ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পে প্রায় ৭৫ শতাংশ পণ্য উৎপাদিত হয়। বাংলাদেশেও উৎপাদিত পণ্যের বেশির ভাগই ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প থেকে আসে। কাজেই আমাদের এসএমই শিল্প স্থাপনের ওপর জোর দিতে হবে। আমাদের মনে রাখতে হবে বর্তমানে ঋণ কোন দয়া নয় এটা উদ্যোক্তার অধিকার। সেই অধিকার থেকে তাদের বঞ্চিত করা যাবে না। ব্যাংক কর্মকর্তাদের জানতে হবে গ্রাহকের কি ধরনের সেবা প্রয়োজন। সেই অনুযায়ী তাদের সেবা দিতে হবে। সিলেটের ওসমানীনগর থানার দয়ামীর বাজারে বৃহস্পতিবার সকালে বাংলাদেশ ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক লিমিটেডের ব্যবসায় উন্নয়ন ও গ্রাহক সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশে সবগুলো ব্যাংকের প্রয় সাড়ে ৮ হাজার ব্রাঞ্চ আছে। এটা প্রয়োজনের তুলনায় মোটেও বেশি নয়। আমাদের দেশের জনসংখ্যার ঘনত্ব অনেক বেশি। ফলে প্রতিটি গ্রাহকের জন্য ব্যাংকিং সেবা নিশ্চিত করার জন্য আমাদের আরও বেশি করে ব্যাংক স্থাপন করতে হবে। ব্যাংকিং সেবা সাধারণ মানুষের দোড় গোড়ায় পৌঁছে দেয়ার জন্য আমাদের সচেষ্ট থাকতে হবে। সে জন্য ব্যাংকিং সেবা সম্প্রসারিত করতে হবে। নতুন নতুন পণ্য ও সেবা উদ্ভাবন করতে হবে। আগে বাংলাদেশ শিল্প ব্যাংক বিশেষায়িত ব্যাংক হিসেবে দায়িত্ব পালন করতো। কিন্তু এখন সময় পাল্টে গেছে। প্রতিযোগিতার মাধ্যমে টিকে থাকতে হবে। বাংলাদেশ ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক লিমিটেডের পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান মোঃ ইয়াছিন আলীর সভাপতিত্বে ও সিলেট ব্রাঞ্চের সিনিয়র অফিসার মোঃ শামীম মিয়ার পরিচালনায় অনুষ্ঠিত গ্রাহক সমাবেশে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের পরিচালক দেওয়ান নুরুল ইসলাম, কাজী মুর্শেদ হোসেন কামাল, সৈয়দ এফতার হোসেন পিয়ার, সাবেক সংসদ সদস্য শফিকুর রহমান চৌধুরী। স্বাগত বক্তব্য রাখেন ব্যাংকের ম্যানেজিং ডিরেক্টর ডঃ মোঃ জিল্লুর রহমান।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন সিলেট রেঞ্জের ডিআইজি মিজানুর রহমান, পুলিশ সুপার নূরে আলম মিনা, বালাগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবদাল মিয়া, বাংলাদেশ ব্যাংকের জেনারেল ম্যানেজার মোঃ মোবারক হোসেন, বিশিষ্ট সমাজসেবী ইয়াকুতুল গণি ওসমানী (টিটু), জেলা আওয়ামী লীগ নেতা জগলু চৌধুরী, জেলা আওয়ামী লীগ নেতা আবুল কালাম ফলিক, বিডিবিএল সিলেট ব্রাঞ্চের সিনিয়র অফিসার মোঃ আশরাফ উল আলম, মোঃ রাকিবুল ইসলাম প্রমুখ।