২২ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

রাতের আঁধারে তিস্তা ব্যারাজের গাছ চুরি


স্টাফ রিপোর্টার, নীলফামারী ॥ গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা দেশের সর্ববৃহৎ সেচ প্রকল্প তিস্তা ব্যারাজের উদ্যান থেকে এবার মূল্যবান গাছ চুরি হতে শুরু করেছে। গত ১৫ দিনের ব্যবধানে শতাধিক গাছ চুরি হয়েছে। অভিযোগ উঠেছে তিস্তা ব্যারাজের দায়িত্বে থাকা আনসার ক্যাম্পের ইনচার্জ আতাউর রহমানসহ কতিপয় ব্যক্তি ব্যারাজের উত্তর মাথায় উদ্যানের ও উদ্যানের বাইরে থাকা গাছগুলো রাতের আঁধারে কড়াত দিয়ে কেটে পাচার করছে।

অভিযোগে বুধবার তিস্তা ব্যারাজের উদ্যানসহ তার আশপাশের এলাকা ঘুরে দেখা যায় মেহগনি, সেগুন, শিশু ইউক্যালিপটারসহ বিভিন্ন প্রজাতির অসংখ্য গাছের মোথা (নিচের অংশ) কাটা অবস্থায় পড়ে আছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক তিস্তা ব্যারাজের এক কর্মচারী ও এলাকার কয়েকজন বাসিন্দা জানান চলতি বছরের গত ২৪ নবেম্বর রাত ১২টা ১ মিনিটের পর থেকে তিস্তা ব্যারাজের ওপর দিয়ে সব প্রকার ভারি যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দেয় উর্ধতন কর্তৃপক্ষ। নিয়ম ছিল তিস্তা ব্যারাজের ওপর দিয়ে ২০ মেট্রিক টনের বেশি মালবোঝাই যানবাহন চলাচল করতে পারবে না। কিন্তু ইজারাদারসহ তিস্তা ব্যারাজের দায়িত্বে থাকা আনসার বাহিনীর ইনচার্জ ৩০ থেকে ৪০ মেট্রিক টন ওজনের ভারি যানবাহন পারাপারে ট্রাক প্রতি অতিরিক্ত ১ হাজার টাকা করে আদায় করে ভাগবাটোয়ারা করে নিত। এতে তিস্তা ব্যারাজে ফাটলসহ হুমকির মুখে পড়ে। এখন তিস্তা ব্যারাজের ওপর দিয়ে ভারি যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যাওয়ায় ওই চক্রটি এখন তিস্তা ব্যারাজের উদ্যানের মূল্যবান গাছ রাতের আঁধারে কেটে পাচার করে টাকা আয় করছে। গত ১৫ দিনে প্রায় শতাধিক গাছ কেটে পাচার করা হয়।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, তিস্তা ব্যারাজ ও তার অবকাঠামোসহ বিভিন্ন স্থাবর সম্পত্তি রক্ষার্থে তিস্তা ব্যারাজে নিয়োগ দিয়েছে ৪০ জন আনসার সদস্য। এজন্য ব্যারাজ ঘেঁষে আনসার ক্যাম্প স্থাপন করা হয়েছে।

গাছ চুরি ও পাচারের বিষয়ে আনসার ক্যাম্পের ইনচার্জ আতাউর রহমানের সঙ্গে সরাসরি দেখা করে কথা বলার চেষ্টা করা হলে তিন এড়িয়ে গেছেন। অপরদিকে তাঁর মুঠোফোনে একাধিকবার কল করা হলে তিনি তা রিসিভ করেননি।

এ ব্যাপারে তিস্তা ব্যারাজের পানি উন্নয়নের ডালিয়া ডিভিশনের অতিরিক্ত দায়িত্ব থাকা পানি উন্নয়ন বোর্ডের রংপুর ডিভিশনের নির্বাহী প্রকৌশলী মাহবুব রহমান মুঠোফোনে জানান গাছ চুরি বিষয়টি জেনেছি। বিষয়টি তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।