১৯ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

ভবিষ্যতে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হতে চান মালালা


শান্তিতে বিশ্বের সর্বকনিষ্ঠ নোবেলজয়ী পাকিস্তানের নারী শিক্ষা অধিকারকর্মী মালালা ইউসুফজাই ভবিষ্যতে সেদেশের প্রধানমন্ত্রী হওয়ার স্বপ্ন দেখেন। আর কর্মজীবনে রাজনীতিকে পেশা হিসেবে বেছে নিতে চান। বুধবার নোবেল পদক গ্রহণের আগে বিবিসিকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে এই ইচ্ছার কথা জানান ১৭ বছর বয়সী মালালা। তিনি বলেন, ব্রিটেনে শিক্ষা জীবন সমাপ্তির পর তিনি পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হওয়ার স্বপ্ন দেখেন। ভারতের প্রখ্যাত শিশু অধিকারকর্মী কৈলাশ সত্যার্থির সঙ্গে যৌথভাবে এবারের শান্তিতে নোবেল পেয়েছেন মালালা। মেয়ে শিশুদের শিক্ষার অধিকারের পক্ষে কথা বলায় ২০১২ সালের অক্টোবর মাসে মালালার মাথায় গুলি করে তালেবান বন্দুকধারীরা। এ বছর বিশ্বের সর্বকনিষ্ঠ নোবেলজয়ী হিসেবে শান্তিতে নোবেল পান মালালা।

নরওয়ের রাজধানী অসলোতে সাংবাদিক স্টিফেন শাকুর উপস্থাপিত ‘হার্ডটক’ অনুষ্ঠানে মালালা বলেন, আমি আমার দেশের সেবা করতে চাই। আমার স্বপ্ন পাকিস্তান একটি উন্নত দেশে পরিণত হবে। তখন প্রত্যক শিশু স্কুলে যাবে। মালালা আরও বলেন, আমার অনুপ্রেরণা বেনজীর ভুট্টো। দুই দফা পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালক করেন বেনজীর। ২০০৭ সালে নিহত হন তিনি। মালালা বলেন, রাজনীতিতে প্রবেশের মাধ্যমে যদি আমি আমার দেশকে সেবা করতে পারি এবং প্রধানমন্ত্রী হতে পারি তাহলে অবশ্যই আমি রাজনীতিকেই পছন্দ করব। আর কৈলাশ সত্যার্থীর সঙ্গে নোবেল জয় আমার জন্য সম্মানের। শুরু থেকে আমার স্বপ্ন ছিল প্রতিটি শিশু স্কুলে যাবে। আর এ কথা মাথায় রেখেই আমি এই প্রচার শুরু করেছিলাম। শান্তিতে নোবেল জয় সম্পর্কে মালালা বলেন, এই পুরস্কার আমার কাছে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এই পুরস্কার আমাকে স্বপ্ন এবং সাহস যুগিয়েছে। আমি এখন আগের চেয়ে সাহসী কারণ আমার প্রতি এখন অনেক মানুষের সমর্থন রয়েছে। আমার এখন অনেক দায়িত্ব। আমি মনে করি আমাকে একদিন আল্লাহ এবং নিজের কাছে জবাবদিহি করতে হবে। আর এ জন্যই আমার উচিত দেশকে সাহায্য করা। এটাই আমার কর্তব্য।