১৮ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

নিষেধাজ্ঞা থেকে মুক্তি সেনানায়েকে-উইলিয়ামসনের


স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ বোলিং এ্যাকশনে ত্রুটি থাকার কারণে সাময়িকভাবে নিষিদ্ধ হয়েছিলেন শ্রীলঙ্কান অফস্পিনার সচিত্র সেনানায়েকে। ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি বোলিংটাও ভালই করতেন নিউজিল্যান্ডের মিডলঅর্ডার ব্যাটসম্যান কেন উইলিয়ামসন। তাঁকেও বোলিং থেকে সাময়িক নিষিদ্ধ করেছিল আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)। এ দুই স্পিনারকেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে বোলিং করার অনুমতি দিয়েছে আইসিসি। ফলে আগামী বিশ্বকাপেই এ দু’জনকে আবার বোলিং করতে দেখা যাবে। এ বছর ইংল্যান্ড সফরের সময় সেনানায়েকের বোলিং এ্যাকশনে ত্রুটি ধরা পড়েছিল। পরে জুলাইয়ে বোলিং থেকে তাঁকে নিষিদ্ধ করা হয়। এরপর বোলিং ফেরার জন্য দীর্ঘদিন কঠোর পরিশ্রম করেছেন। চেষ্টা করেছেন নিজের বোলিং ত্রুটি শুধরানোর। অবশেষে গত মাসে চেন্নাইয়ে আইসিসি অনুমোদিত ল্যাবে পরীক্ষা দেয়ার পর উত্তীর্ণ হন তিনি। আর অনিয়মিত অফস্পিনার হিসেবে মাঝে মাঝে বোলিং করেন উইলিয়ামসন দলের প্রয়োজনে। তাঁকেও বোলিং আক্রমণে ত্রুটি থাকার জন্য জুলাইয়ে নিষিদ্ধ করা হয়েছিল। তবে আইসিসির কাছ থেকে অনুমোদন পেলেও সূক্ষ্ম পর্যবেক্ষণে থাকবেন এ দু’জন। আইসিসি জানিয়েছে আগামী দুই বছরের মধ্যে নতুন করে যদি বোলিংয়ে কোন ত্রুটি ধরা পড়ে এবং সেটা প্রমাণিত হয় সেক্ষেত্রে ১ বছরের জন্য নিষেধাজ্ঞা আরোপিত হবে। চেন্নাইয়ে পরীক্ষা দেয়ার সময় সেনানায়েকে যে চারটি বিশেষ দক্ষতা আছে সবই করে দেখিয়েছেন। সবই তিনি এখন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ব্যবহার করতে পারবেন। পার্থে এর আগে ১০ দিন ধরে তিনি হিউম্যান মুভমেন্ট বিশেষজ্ঞ ড্যারিল ফস্টারের সঙ্গে কাজ করেছেন। এছাড়া স্থানীয় কিছু কোচও তাঁকে সহায়তা করেছেন। এ বছরের গোড়ার দিকে সেনানায়েকে নিজেকে লঙ্কানদের জন্য অন্যতম এক অস্ত্র হিসেবে নিজেকে প্রমাণ করতে সক্ষম হয়েছেন। বিশেষ করে ইংল্যান্ড সফরে টি২০ ও ওয়ানডে সিরিজে তিনি দলের সাফল্যের মূলনায়ক ছিলেন। এ কারণে আইসিসি অনুমোদন দেয়ার আগেই বিশ্বকাপের জন্য ঘোষিত ৩০ সদস্যের প্রাথমিক দলে রাখা হয়েছিল তাঁকে। এর আগেই আগস্ট থেকে তিনি বিভিন্ন পর্যায়ের ক্রিকেটে ফিরেছিলেন। সম্প্রতি সিংহলিজ স্পোর্টস ক্লাবের হয়ে সিঙ্গাপুরের একটি টুর্নামেন্টে ও দেশে প্রিমিয়ার আসরেও খেলেছেন সেনানায়েকে।