২৩ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৮ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

উন্নয়নশীল দেশগুলোর লাগবে ৫০ হাজার কোটি ডলার


জলবায়ু পরিবর্তনজনিত ক্ষয়ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে ২০৫০ সালের মধ্যে প্রতিবছর ৫০ হাজার কোটি ডলার প্রয়োজন হতে পারে উন্নয়নশীল দেশগুলোর। আগের হিসাবের চেয়ে এ অর্থ অনেক বেশি। এক জাতিসংঘ রিপোর্টে শুক্রবার এ তথ্য জানানো হয়। খবর এএফপির।

জাতিসংঘ পরিবেশগত কর্মসূচী (ইউএনইপি) জানায়, জলবায়ু পরিবর্তনের সঙ্গে খাপ খাওয়ানোর জন্য বর্তমান সরকারী ব্যয়ের চেয়ে ঐ অঙ্ক প্রায় ২০ গুণ বেশি। দেশগুলো বিশ্বায়নের উষ্ণতা শিল্পবিপ্লব পূর্ব পর্যায়ের চেয়ে দুই ডিগ্রী সেলসিয়াসে বেশি মাত্রায় (৩ দশমিক ৬ ডিগ্রী ফারেনহাইট) সীমিত রাখার জন্য জাতিসংঘের লক্ষ্যমাত্রায় পৌঁছতে ব্যর্থ হলে এ গুণের সংখ্যা আরও স্ফীত হতে পারে। সংস্থার নির্বাহী পরিচালক এ্যাচিম স্টিনার এক বিবৃতিতে বলেছেন, জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব এর মধ্যেই জাতীয় ও স্থানীয় কর্তৃপক্ষের বাজেটে একটি বিষয়ে পরিবর্তন হতে শুরু করেছে। তিনি বলেন, সমাজ, শহর, ব্যবসা, করদাতা ও জাতীয় বাজেটের ওপর এ ব্যয় বৃদ্ধি অত্যন্ত মনযোগ কাড়ার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে।

২০১২-১৩ সালে বিশ্বে জলবায়ু অভিযোজনে সরকারী অর্থায়ন ব্যয়ের প্রতিশ্রুতি ছিল প্রায় ২ হাজার ৩শ’ থেকে ২ হাজার ৬শ’ কোটি ডলার। এ অর্থের ৯০ শতাংশ প্রতিশ্রুতিই ছিল উন্নয়নশীল দেশগুলোর। বৈশ্বিক উষ্ণতা নিয়ন্ত্রণে একটি নতুন চুক্তির বিস্তারিত খসড়া প্রণয়নের লক্ষ্যে লিমায় জাতিসংঘের একটি আলোচনা অনুষ্ঠান প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। জলবায়ু পরিবর্তনের সবচেয়ে বড় শিকার দরিদ্র দেশগুলো। চরম বিপর্যয়কর আবহাওয়া, বন্যা, অনাবৃষ্টি ও সমুদ্র পৃষ্ঠের উচ্চতা বৃদ্ধির কারণে সৃষ্ট এ বিপর্যয়ের শিকার এসব দেশ এবং এ সকল কারণ নিয়ন্ত্রণে অর্থায়নের জন্য চুক্তিতে প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করবে ধনী দেশগুলো এ দাবি উন্নয়নশীল দেশগুলোর।

জাতিসংঘের জলবায়ু বিষয়ক শীর্ষ সংস্থা ইন্টারগভর্নমেন্টাল প্যানেল অন ক্লাইমেট চেঞ্জ (আইপিসিসি) বলেছিল, উন্নয়নশীল দেশগুলোয় ২০৫০-এর আগ পর্যন্ত অভিযোজন ব্যয় দাঁড়াবে ৭ হাজার থেকে ১০ হাজার কোটি ডলার। কিন্তু নতুন ইউএনইপি রিপোর্টে বলা হয়েছে, এ হিসাব উল্লেখযোগ্য পরিমাণে কম হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।