১৭ ডিসেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

সাতক্ষীরায় পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে জামায়াত ক্যাডার গুলিবিদ্ধ


জনকণ্ঠ ডেস্ক ॥ সাতক্ষীরার শ্যামনগরে পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে এক জামায়াত ক্যাডার গুলিবিদ্ধ হয়েছে। এছাড়া পিরোজপুরের কাউখালীতে র‌্যাবের সঙ্গে ক্রসফায়ারে এক সন্ত্রাসী নিহত হয়। খবর স্টাফ রিপোর্টার ও নিজস্ব সংবাদদাতার।

সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলার কাইটখালী বিল এলাকায় শুক্রবার রাত সাড়ে ৮টায় পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে আক্তার ফারুক নামের এক জামায়াত ক্যাডার গুলিবিদ্ধ হয়েছে। তিনি উপজেলার কাশিমারী গ্রামের আশরাফুল জমদ্দারের ছেলে। পুলিশ জানায়, আক্তার ফারুক একজন সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামি। তার বিরুদ্ধে ১৬টি নাশকতার মামলা রয়েছে।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, কাইটখালী বিল এলাকায় আক্তার ফারুকসহ ১৫ থেকে ২০ জন সশস্ত্র জামায়াত ক্যাডার গোপন বৈঠক করছে এমন তথ্যের ভিত্তিতে পুলিশ সেখানে অভিযান চালায়। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে সন্ত্রাসীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে কয়েকটি বোমা ছোড়ে। পুলিশও পাল্টা গুলি চালালে আক্তার ফারুক পায়ে গুলিবিদ্ধ হয়। পুলিশ এ সময় সেখান থেকে একটি পাইপগান ও তিন রাউন্ড গুলি উদ্ধার করে। মারাত্মক আহত অবস্থায় আক্তার ফারুককে শ্যামনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

পিরোজপুরে র‌্যাবের ক্রসফায়ারে নিহত ১ ॥ রাজাপুর উপজেলার শুক্তাগর গ্রামের বাসিন্দা সন্ত্রাসী সবুজ হাওলাদার (৩৫) শুক্রবার সন্ধ্যায় পিরোজপুরের কাউখালীতে র‌্যাবের ক্রসফায়ারে নিহত হয়েছে। শনিবার তার মৃতদেহ পিরোজপুরের কাউখালী থানা পুলিশ ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করেছে। র‌্যাব সূত্রে জানা গেছে, সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় বরিশাল র‌্যাব-৮ সন্ত্রাসী সবুজকে নিয়ে পিরোজপুর জেলার কাউখালী উপজেলার কলেজ সংলগ্ন এলাকায় গেলে সবুজের সহযোগীরা র‌্যাবের ওপর গুলি চালায়। এ সময় সবুজ নিহত হয় এবং তার সহযোগীরা অস্ত্র ও ককটেল ফেলে পালিয়ে যায়। র‌্যাব ঘটনাস্থল থেকে বন্দুক, একটি কাটা রাইফেল ও কয়েকটি ককটেল উদ্ধার করেছে। রাজাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মাসুদুজ্জামান জানিয়েছেন, সবুজের বিরুদ্ধে রাজাপুর থানায় ডাকাতি ও দস্যুতাসহ ৬টি মামলা এবং কাউখালীসহ অন্য থানায় আরও কিছু মামলা রয়েছে।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: