২৩ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

সিরাজদিখানে দু’দিনব্যাপী সাধুসঙ্গ


স্টাফ রিপোর্টার, মুন্সীগঞ্জ ॥ ফকির লালন সাঁইজীর জীবন কর্ম ও মানবপ্রেমের মর্ম বাণী প্রচার এবং বাংলা সংস্কৃতিকে বিশ্ব দরবারে তুলে ধরতে প্রতিবছরের মতো এবারও মুন্সীগঞ্জ জেলার সিরাজদিখানে দু’দিনব্যাপী সাধুসঙ্গ অনুষ্ঠিত হচ্ছে। সিরাজদিখানের দোসরপাড়া গ্রামের টেকেরহাটে পদ্মহেম ধামের উদ্যোগে আয়োজিত লালন শাহ বটতলা সাধুসঙ্গ গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় শুরু হয়েছে। চলবে আজ শনিবার ভোর রাত পর্যন্ত। সাধু সঙ্গে লালন জীবনী, সাধনা বিষয়ক বয়ান ও লালনগীতি পরিবেশনায় অংশ নিচ্ছেন কুষ্টিয়া, মেহেরপুর, ফরিদপুর, মুন্সীগঞ্জ ও ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের লালন সাধক ও ভক্ত-অনুসারীরা। এ বছরও ভারত ও জাপানের উচ্চপর্যায়ের সাধক, সাধু গুরু ও খ্যাতনামা বাউল শিল্পীরা অংশ নিচ্ছেন। তাই সিরাজদিখানের দোসরপাড়ার উদ্দেশ্যে এখন লালন ভক্তদের পদচারণা বেড়ে গেছে। পথে পথেই এখন দেখা যাচ্ছে লালন ভক্তদের।

দু’দিনব্যাপী আয়োজিত এ সাধুসঙ্গে প্রথমদিন প্রধান অতিথি ছিলেন সংসদ সদস্য সুকুমার রঞ্জন ঘোষ। বিশেষ অতিথি ছিলেন কলামিস্ট, গবেষক ও পরিবেশবাদী সৈয়দ আবুল মকসুদ, সিরাজদিখান উপজেলা চেয়ারম্যান মহিউদ্দিন আহমেদ ও চলচ্চিত্র অভিনেতা ফেরদৌস। আজ শনিবার দ্বিতীয় দিনের অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি থাকবেন জেলা প্রশাসক মোঃ সাইফুল হাসান বাদল, বিশেষ অতিথি থাকবেন যথাক্রমে পুলিশ সুপার বিপ্লব বিজয় তালুকদার। পদ্মহেম ধাম লালনসাঁই বটতলার সাধারণ সম্পাদক রাসেল মাহমুদ বলেন, শুক্রবার সকাল থেকে শুরু হয় সাধু গুরু বাউল শিল্পীদের আগমন। বিকেল সাড়ে ৫টায় ছিল সাধু গুরুদের আসন গ্রহণ ও অধিবাস। এরপর পর্যায়ক্রমে মধুপূর্ণিমা সাধুসঙ্গের নামকরণ কার্যাবলী ও বিধিবিধান জ্ঞাপন, জ্ঞানরতœকর ফকির লালন সাঁইজির জীবলীলা স্মরণ, গুরুকর্ম যন্ত্রছাড়া সমবেত কণ্ঠে গুরুদৈন্য শেষে চা-মুড়ি সেবা, হালকা নাশতা পর দৈন্যগানের পর রাত সাড়ে ৮টায় শুরু হবে আমন্ত্রিত শিল্পীদের পরিবেশনায় লালনগীতির মূল আসর। চলে ভরা পূর্ণিমা পর্যন্ত। পরের দিন ভোর ৬টায় গোষ্ঠগানের মধ্যে দিয়ে গুরুকর্ম, বাল্যসেবার পর দুপুর পর্যন্ত চলবে লালনগীতি, পূর্ণসেবার পর সন্ধ্যায় আবার শুরু হবে দ্বিতীয় রাতের লালনগীতির মূল আসর শেষে ভোর ৬টায় গোষ্ঠগানের আসরের মাধ্যমেই শেষ হবে লালন শাহ্ বটতলা সাধুসঙ্গ-১৪২১। পদ্মহেম ধাম লালনসাঁই বটতলার প্রতিষ্ঠাতা কবির হোসেন বলেন, মানবতার বাহক সর্বপ্রাণ লালন সাঁইজীর আদর্শই আমাদের মূল শক্তি। সত্য বল সুপথে চল ওরে আমার মন, লালন সাঁইজীর এই বাণীর ওপর ভিত্তি করেই আশ্রমটি পরিচালিত হচ্ছে এবং আগামীতেও সাঁইজির কৃপায় এই সাধুসঙ্গ আব্যাহত থাকবে।

সর্বাধিক পঠিত:
পাতা থেকে: