১৭ ডিসেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

কয়লা আমদানি বন্ধ থাকায় হাজার হাজার শ্রমিক বেকার


নিজস্ব সংবাদদাতা, ভৈরব ॥ ভারত থেকে আমদানি বন্ধ থাকায় দেশের বৃহৎ কয়লা আড়ত ভৈরবে অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। কয়লাসহ সংশ্লিষ্ট খাতে কোটি কোটি টাকা বিনিয়োগকারী ব্যবসায়ীরা চরম বেকায়দায়। বেকার হয়ে পড়েছে এর সঙ্গে জড়িত হাজার হাজার শ্রমিক। কয়লার অভাবে ভৈরবসহ দেশের ৯০ ভাগ ইটভাঁটি বন্ধ হয়ে গেছে বলে দাবি ইটভাঁটি মালিকদের। চাহিদা মতো ইট তৈরি না হলে আগামীতে সরকারের উন্নয়ন কাজ ক্ষতিগ্রস্ত হবার আশংকা ব্যবসায়ীদের।

নদীপথে ট্রলারে করে আনা কয়লা ঘাটে জাগ দিয়ে রাখা, ট্রাকে লোড করাসহ বিভিন্ন কাজে হাজারো শ্রমিকের সদা কর্মব্যস্ত দৃশ্যটি পাল্টে গেছে ভৈরব পুরান ফেরিঘাট এলাকায় কয়লা আড়তের। কয়লা আমদানি বন্ধ থাকায় সেইসব শ্রমিক এখন বেকার হয়ে পড়েছে। প্রতিদিন কাজের আশায় ঘাটে আসলেও, কাজ না পেয়ে এখানে-সেখানে বসে আড্ডায় সময় কাটাচ্ছে। সীমান্ত এলাকায় পূর্বে আমদানিকৃত নিম্নমানের যৎসামান্য কয়লা ঘাটে আসলেও, তা চাহিদার তুলনায় অতিনগণ্য। আর এ কাজে অল্প সংখ্যক শ্রমিকের কাজের ব্যবস্থা হলেও, অধিকাংশ শ্রমিক অলস সময় পার করছে। আয় না থাকায় তাদের পরিবারে দৈন্যদশা নেমে এসেছে বলে জানায় তারা।

ভারতের মেঘালয় রাজ্য থেকে কয়লা সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার বড়ছড়া, চারাগাঁও, এবং বাগলি সীমান্ত পয়েন্ট দিয়ে নদীপথে ভৈরবে আনা হয়। পরে নদী ও সড়কপথে এইসব কয়লা যায় ঢাকাসহ দেশের দক্ষিণ ও উত্তরাঞ্চলের বিভিন্ন মোকামে। ভারতের ব্যবসায়ীদের নামে এলসিসহ দেশের ইটভাঁটি মালিকদের কাছে ৫০ কোটি টাকার মতো বিনিয়োগ করে তারা এখন চরম বেকায়দায় আছেন এখানকার কয়লা ব্যবসায়ীরা। ইটভাঁটিতে কয়লা দিতে না পারায় মালিকরা তাদের পাওনা টাকা পরিশোধ করছেন না। কয়লার সঙ্গে রড, সিমেন্ট ও বালির সম্পর্ক আছে উল্লেখ করে ব্যবসায়ীরা জানান, বর্তমানে দেশের ৯০ ভাগ ইটভাঁটি কয়লার অভাবে বন্ধ আছে। আর এতে করে আগামীতে সরকারের উন্নয়ন কাজও ক্ষতির মুখে পড়বে। এমতাবস্থায় বিষয়টির সুরাহা করতে সরকারের দ্রুত হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন তারা। প্রায় ছয় মাস আগে ভারতের পরিবেশবাদী সংগঠনের দায়ের করা মামলার কারণে মেঘালয় দিয়ে বাংলাদেশে কয়লা আমদানি বন্ধ করে দেয় দেশটির সরকার। সে থেকে কয়লা আসা বন্ধ হয়ে যায় ভৈরবে। শত শত ট্রাক আর শ্রমিকের কর্মব্যস্ত ভৈরব কয়লা আড়তে বর্তমানে নেমে এসেছে দুরবস্থা।