২১ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট পূর্বের ঘন্টায়  
Login   Register        
ADS

বন্ধুর ছুরিকাঘাতে মাদকসেবী খুন, দুই নারীর মৃত্যু


স্টাফ রিপোর্টার ॥ রাজধানীর রমনা থানার মগবাজার রেলক্রোসিং এলাকায় কিশোর মাদকসেবী বন্ধুর ছুরিকাঘাতে আরেক মাদকসেবী খুন হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ নাজমুল ইসলাম (২০) নামে এক মাদকসেবীকে গ্রেফতার করেছে। ধানম-ি ও রমনায় কিশোরী গৃহপরিচারিকাসহ দুই নারীর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। এদিকে লালবাগ চৌরাস্তায় ছিনতাইকারীরা এক ব্যবসায়ীকে এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাত করে নগদ টাকা ও মোবাইল সেট ছিনিয়ে নিয়েছে। অন্যদিকে উত্তরায় এক হাজার পিস ইয়াবাসহ দুই স্কুলছাত্রকে আটক করা হয়েছে। পুরান ঢাকার জুরাইনে ইয়াবাসহ এক নারীকে আটক করেছে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতর। বৃহস্পতিবার পুলিশ ও মেডিক্যাল সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, বৃহস্পতিবার ভোরের দিকে রমনা থানাধীন মগবাজার রেলক্রসিং এলাকায় মাদকসেবী বন্ধুর ছুরিকাঘাতে আরেক টোকাই মাদকসেবী রাজু (১৯) খুন হয়েছে। খবর পেয়ে পুলিশ সেখান থেকে ওই কিশোরীর রক্তাক্ত লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠায়। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে খুনের অভিযোগে নাজমুল ইসলাম নামে এক মাদকসেবীকে গ্রেফতার করেছে। রমনা মডেল থানার উপপরিদর্শক (এসআই) সাঈদ ইবনে সিদ্দিক জানান, রাজু ও নাজমুল দুইজনেই মাদকসেবী। তারা একে অপরের বন্ধু। তারা বিভিন্ন এলাকায় ভাঙ্গারি কুড়াতো। বৃহস্পতিবার ভোর ছয়টার দিকে রাজু ও নাজমুল মগবাজার রেলক্রোসিং এলাকায় ভাঙ্গারি কুড়াতে যায়। ভাঙারি বিক্রির টাকা নিয়ে টোকাই নাজমুলের সঙ্গে রাজুর মারামারি হয়। এক পর্যায়ে নাজমুল ধারালো ছুরি দিয়ে রাজুর গলায় ও বুকে ছুরিকাঘাত করে। এতে রাজু ঘটনাস্থলে মারা যায়। স্থানীয় লোকজন চিৎকার শুনে ঘটনাস্থলে এসে নাজমুলকে আটক করে। পরে পুলিশকে সংবাদ দিলে পুলিশ এসে ঘাতক নাজমুলকে গ্রেফতার করে। পুলিশ রাজুর লাশের সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করে। এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত নিহত রাজুর অন্য কোন পরিচয় জানা যায়নি। সন্ধ্যায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত তার খোঁজে কেউ আসেনি।

দুই নারী রহস্যজনক মৃত্যু ॥ বৃহস্পতিবার সকালে পুলিশ ধানম-ি থানাধীন ৯/এ নম্বর রোডের ৮৪ নম্বর ফায়েজুল হকের বাসা থেকে সালমা খাতুন (১৫) নামে এক গৃহকর্মীর লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক মর্গে পাঠায়। নিহত সালমার বাবার নাম দুলাল হোসেন। গ্রামের বাড়ি নেত্রকোণা জেলার কলমাকান্দা থানার গৌরিপুর গ্রামে। হাজারীবাগ বৌবাজারে সালমার পরিবার ভাড়া থাকেন। সালমার চাচা তোফাজ্জেল হোসেন জানান, ছয় মাস ধরে সালমা ধানম-িতে ফায়েজুল হকের বাসায় কাজ করত। দুই-তিন দিন আগে সালমা নিজের বাসায় আসে। এ সময় সালমা তার মাকে জানান, তার ওপর নির্যাতন করা হয়। সে আর ধানম-ির ওই বাড়িতে ফিরে যাবে না। তবে তার মা আবার তাকে ফেরত পাঠায়। তিনি অভিযোগ করেন, সালমা আত্মহত্যা করতে পারে না। তাকে হত্যা করে ফ্যানের সঙ্গে ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে। তার ময়নাতদন্তের পর আসল ঘটনা জানা যাবে। এদিকে বুধবার গভীররাতে পুলিশ রমনা থানাধীন মগবাজারের মীরবাগ ১১/১ নম্বর বাড়ি থেকে প্রিয়াঙ্কা (২২) নামে এক গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করে ঢামেক মর্গে পাঠায়। ঘটনার পর থেকে নিহতের স্বামী গা ঢাকা দিয়েছে। তিনি জানান, নিহতের শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তবে এ ঘটনার পর থেকে নিহতের স্বামী পলাতক রয়েছেন। রমনা থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মইনুল জানান, তার মৃত্যুর ঘটনা রহস্যজনক। ময়নাতদন্তের পর আসল ঘটনা জানা যাবে। তদন্ত চলছে। নিহতের শ্বশুরবাড়ির লোকজন জানান, দীর্ঘদিনের পারিবারিক কলহের জেরে প্রিয়াঙ্কা ঘরের ফ্যানের সঙ্গে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে আতœহত্যা করেছে।

ছিনতাই ॥ বৃহস্পতিবার ভোরেরদিকে লালবাগ চৌরাস্তায় ছিনতাইকারীরা ছুরিকাঘাতে মুত্তাকি হোসেন বাবু (৩৫) নামে এক ইমিটেশন ব্যবসায়ীকে ছুরিকাঘাত করে নগদ সাড়ে ২৭ হাজার টাকা ও একটি মোবাইল নিয়ে গেছে। পরে তাকে রক্তাক্ত আহত অবস্থায় উদ্ধার করে ঢামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আহতের বন্ধু মোঃ খোকন মিয়া জানান, বাবু লালবাগ রসুলবাগের ১৯৬/৫ বাসায় থাকেন। বাড়ির সামনে রসুলবাগে তার একটি ইমিটেশন কারখানা রয়েছে। তিনি বিভিন্ন মেলায় ইমিটেশনের গহনা সরবরাহ করে থাকেন। বুধবার তিনি চাঁদপুরের একটি মেলায় গিয়েছিলেন। চাঁদপুর থেকে লঞ্চে এসে তিনি সদরঘাট নামেন বৃহস্পতিবার ভোরে। সেখান থেকে রিক্সাযোগে রসুলবাগের নিজ বাসায় আসার পথে তাজ ইলেকট্রনিকের সামনে পাঁচ ছিনতাইকারী তার গতিরোধ করে। পরে ছিনতাইকারীরা তার ডান পায়ের রানে ছুরিকাঘাত করে নগদ সাড়ে ২৭ হাজার থাকা ও মোবাইল ফোন নিয়ে পালিয়ে যায়।

ইয়াবাসহ দুই স্কুলছাত্র আটক ॥ বুধবার মধ্যরাতে পুলিশ উত্তরা পূর্ব থানাধীন আব্দুল্লাহপুর পুলিশ চেকপোস্ট থেকে এক হাজার পিস ইয়াবাসহ শুভ (১৪) ও রুবেল (১০) নামে দুই স্কুলছাত্রকে আটক করে। আটককৃত শুভর বাবার নাম আনোয়ার হোসেন। গ্রামের বাড়ি টাঙ্গাইল সদর উপজেলার দেলদা গ্রামে। স্থানীয় খাসকাকুয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণীর ছাত্র। আর রুবেল ওই গ্রামের রজব আলীর ছেলে। সে দেলদা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণীর ছাত্র। আব্দুল্লাহপুর পুলিশ চেকপোস্টে কর্তব্যরত অফিসার সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) অনুপম চন্দ্র বিশ্বাস জানান, দুই ছাত্র কৌশলে ইয়াবা কালো স্কচটেপে পেঁচিয়ে বিক্রির উদ্দেশে নিয়ে যাচ্ছিল। তিনি জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা জানিয়েছে, তাদের গ্রামের জামালের ছেলে ইব্রাহিম ইয়াবাগুলো উত্তরায় বিক্রি করতে এসেছিল। পরে এগুলো তাদের কাছে রেখে পুলিশ দেখে ভয়ে পালিয়ে যায়। উত্তরা পূর্ব থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ আলী হোসেন জানান, ওই দুই ছাত্রের বিরুদ্ধে মাদ্রকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা হয়েছে।

এদিকে একই সময় জুরাইনের দুলহান কমিউনিটি সেন্টারের সামনে থেকে ৫০ পিস ইয়াবাসহ আসমা (৫০) নামের এক নারীকে আটক করেছে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতর। মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের পরিদর্শক মোঃ ফজলুল হক জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে আসমার ইয়াবা বেচাকেনার কথা জানতে পারি। পরে এ তথ্যের ভিত্তিতে আসমার সঙ্গে ফোনে যোগাযোগ করে ২০০ পিস ইয়াবা কেনার কথা বললে সে ইয়াবা নিয়ে দুলহান কমিউনিটি সেন্টারের সামনে আসে। পরে তাকে হাতেনাতে আটক করা হয়।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: