২০ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট পূর্বের ঘন্টায়  
Login   Register        
ADS

২০ ফুট মাটির নিচ থেকে ব্যবসায়ীর গলিত লাশ উদ্ধার


নিজস্ব সংবাদদাতা, কুমিল্লা ও দাউদকান্দি, ৪ ডিসেম্বর ॥ কুমিল্লায় অপহরণের ২০ দিন পর ২০ ফুট মাটির নিচ থেকে আতাউর রহমান সেলিম নামে এক ব্যবসায়ীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার দুপুরে জেলার তিতাস উপজেলার শিবপুর গ্রামের একটি ধানী জমির মাটি খুঁড়ে ওই ব্যবসায়ীর গলিত লাশ উদ্ধার করা হয়। এ সময় আশপাশের এলাকার কয়েক হাজার উৎসুক জনতা ভিড় জমায়। পুলিশ এ ঘটনায় ৪ জনকে আটক করেছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, পূর্বশত্রুতার জের ধরে জেলার দাউদকান্দি উপজেলার গৌরীপুর বাজারের ব্যবসায়ী তিতাস উপজেলার দড়িকান্দি গ্রামের মোঃ আবদুল লতিফের পুত্র আতাউর রহমান সেলিমকে (২৬) গত ১৪ নবেম্বর বিকালে উপজেলার মজিদপুর এলাকা থেকে অপহরণ করা হয়। এ ঘটনায় ব্যবসায়ীর বড় ভাই জিয়াউর রহমান বাদী হয়ে তিতাস থানায় মামলা দায়েরের পর দড়িকান্দি গ্রামের সুমন (২৪), আনোয়ার (১৮), আজহারুল (২৫) ও সালাউদ্দিনকে (২৬) আটক করে পুলিশ। তিতাস থানার ওসি তারেক মোহাম্মদ আবদুল হান্নান জানান, আটককৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে ব্যবসায়ী আতাউর রহমান সেলিমের লাশ শিবপুর গ্রামের জনৈক আলী আশ্রাফের একটি ধানী জমির মাটি খুঁড়ে পুঁতে রাখা হয়েছে বলে জানায়। পুলিশ বৃহস্পতিবার দুপুরে আটককৃতদের দেখানোমতে ওই জমির মাটি খুঁড়ে আনুমানিক ২০ ফুট নিচ থেকে ব্যবসায়ীর লাশ উদ্ধার করে। বিকেলে লাশের ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়। এদিকে নিহতের স্বজনসহ আশপাশের এলাকার কয়েক হাজার উৎসুক জনতা ঘটনাস্থলে ভিড় জমায়। লাশ দেখে নিহতের স্বজনরা কান্নায় ভেঙ্গে পড়ে। এ সময় এক হৃদয়বিদারক দৃশ্যের সৃষ্টি হয়।

একদিকে মাটি খুঁড়ে লাশ তোলার কাজে ব্যস্ত পুলিশ অন্যদিকে স্বজনদের সান্ত¡না দিতে এসে চোখের জলে ভেসে যায় নিকটাত্মীয়রা। ভাইয়ের শোকে কাঁদছিলেন বড় ভাই জিয়াউর। পাশে বড় বোন নাজমা বুক চাপড়ে ভাই হত্যার বিচার চাইছে, আমার ভাইরে যারা খুন করছে আমি এই খুনের বিচার চাই। নববিবাহিতা সেলিমের স্ত্রী জিন্নাও আহাজারি করছিলেন স্বামীকে হারিয়ে। তারা খুনীদের ফাঁসি দাবি করেন। এ ব্যাপারে নিহতের ভাই জিয়াউর বাদী হয়ে তিতাস থানায় মামলা দায়ের করেন।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: