২০ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৩ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

৫ জানুয়ারির নির্বাচন হয়েছে বলেই এই বিজয় এসেছে


বিশেষ প্রতিনিধি ॥ বিশ্বের ১৯২ টি দেশের ৬৫০ কোটি মানুষের জীবনমান উন্নয়নে কাজ করার প্রতিশ্রুতি দিলেন কমনওয়েলথ পার্লামেন্টারি এ্যাসোসিয়েশনের নির্বাহী চেয়ারপার্সন ডক্টর শিরীন শারমিন চৌধুরী এবং আন্তঃপার্লামেন্টারি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সাবের হোসেন চৌধুরী।

স্পীকার এ প্রসঙ্গে বলেন, ৫ জানুয়ারির নির্বাচন না হলে গণতান্ত্রিক ধারাবাহিকতা কিভাবে রক্ষা হতো বিশ্ববাসীর কাছে সেটা নিয়েই প্রশ্ন উঠত। ওই নির্বাচন হয়েছে বলেই বাংলাদেশের এই বিজয় অর্জন। তীব্র প্রতিযোগিতা করেই বিশ্ব পর্যায়ের দুটি গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানের আমরা নেতা নির্বাচিত হয়েছি।

এ সময় সাবের হোসেন চৌধুরী এ বিজয়কে বাংলাদেশের বিজয় হিসেবে দেখার আহ্বান জানান। সেই সঙ্গে বাংলাদেশের সংসদকে বিশ্ব মানে নিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়ে বলেন, বিশ্বের সকল সংসদকে একটি মানে উন্নীত করা হবে।

বুধবার পার্লামেন্ট মেম্বারস ক্লাবে আয়োজিত মিট দ্যা প্রেস অনুষ্ঠানে দেশের দুই কৃতীসন্তান বলেন, সব দেশের ‘বেস্ট প্র্যাকটিস’ বাংলাদেশে চালু করা হবে। এ সময় তাঁরা জানান, শীঘ্রই বাংলাদেশে সিপিএ এবং আইপিইউর শাখা খোলা হবে।

বাংলাদেশ পার্লামেন্ট জার্নালিস্ট ফোরাম এই মিট দ্যা প্রেস অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। এতে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি উত্তম চক্রবর্তী। বক্তৃতা করেন ডেপুটি স্পীকার ফজলে রাব্বী মিয়া, সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি সফিকুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক রেজোয়ানুল হক রাজা, সংগঠনের বর্তমান সাধারণ সম্পাদক কামরান রেজা চৌধুরী প্রমুখ।

মিট দ্যা প্রেস অনুষ্ঠানের আগে কমনওয়েলথ পার্লামেন্টারি এ্যাসোসিয়েশনের (সিপিএ) নির্বাহী চেয়ারপার্সন নির্বাচিত হওয়ায় ডক্টর শিরীন শারমিন চৌধুরী এবং ইন্টারপার্লামেন্ট ইউনিয়নের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ায় সাবের হোসেন চৌধুরীকে সংগঠনের পক্ষ থেকে ক্রেস্ট ও উত্তরীয় প্রদান করা হয়। এ সময় সংগঠনের সদস্যরা দুটি বিশ্ব ফোরামে বিজয়ী হওয়ায় স্পীকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী ও সংসদ সদস্য সাবের হোসেন চৌধুরীকে ফুল দিয়ে অভিনন্দিত করেন।

বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচন প্রশ্নে স্পীকার বলেন, দেশের নির্বাচনী আইনে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হওয়ার বিধান আছে। এটা চাঁদের কলঙ্কের বিষয় নয়। বৈধ আইনী কাঠামোর মধ্যেই আমরা সংসদ সদস্য হিসেবে বিজয়ী হয়েছি।

স্পীকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, এ বিজয় বাংলাদেশের বিজয়, এ বিজয় বাংলাদেশের সংসদ ও জনগণের বিজয়। এখন গণতন্ত্রকে এগিয়ে নেয়াই হবে আমাদের সবচেয়ে বড় কাজ। আমরা গণতন্ত্র চর্চাকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দেয়ার চেষ্টা করব। আমরা অন্তর্ভুক্তিমূলক গণতন্ত্রের উন্নয়ন করব। এই উন্নয়নে তরুণ প্রজন্মের মতামত, নারীর ক্ষমতায়ন ও প্রতিবন্ধীদের প্রতিনিধিত্ব সংসদে নিয়ে আসা হবে। তিনি বলেন, আমার কাজ হবে গণতান্ত্রিক ধারাবাহিকতা এগিয়ে নিয়ে যাওয়া। সিপিএর মাধ্যমে মানুষের জীবনমানের উন্নয়ন ঘটানো।

সাবের হোসেন চৌধুরী বলেন, আইপিইউর চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ায় দায়িত্ব বেড়ে গেছে। সংসদের এবং সংসদীয় কমিটিগুলোতে সংসদ সদস্যরা কিভাবে আরও সক্রিয়ভাবে কাজ করতে পারে এবং গণতান্ত্রিক সুশাসনে কিভাবে তারা ভূমিকা রাখতে পারেন সেটা নিয়ে কাজ করব।

ফজলে রাব্বী মিয়া বলেন, সিপিএ এবং আইপিইউতে বিজয় বাংলাদেশের বড় অর্জন। এই অর্জন নিয়ে যাঁরা সমালোচনা করেন তাঁদের দেশপ্রেম নিয়ে প্রশ্ন আছে।

সাবের হোসেন চৌধুরী বলেন, আগে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে বাংলাদেশের নেতিবাচক ভাবমূূর্তি ছিল। আর এখন আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বাংলাদেশ নতুনভাবে উপস্থাপিত হচ্ছে। বাংলাদেশকে এখন ‘রোল মডেল’ হিসেবে উপস্থাপন করা হচ্ছে। তিনি বলেন, বাংলাদেশ এখন সারা বিশ্বের সংসদ ও গণতন্ত্রের নেতৃত্ব দিচ্ছে। এ জন্য সকলকে ভূমিকা রাখতে হবে।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: