২১ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

বঙ্গোপসাগরে নির্মিত হবে ভাসমান এলএনজি টার্মিনাল ॥ বাণিজ্যমন্ত্রী


স্টাফ রিপোর্টার, চট্টগ্রাম অফিস ॥ দেশের গ্যাস সঙ্কট নিরসনে বঙ্গোপসাগরে নির্মিত হবে সাড়ে ৩ মিলিয়ন মেট্রিক টন ধারণক্ষমতাসম্পন্ন ভাসমান এলএনজি টার্মিনাল। এ প্রকল্প পরবর্তী ক্রয় কমিটিতে অনুমোদন দেয়া হবে। আর কক্সবাজারের মাতারবাড়িতে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুত কেন্দ্র স্থাপন এবং চট্টগ্রামের মীরসরাইসহ বেশ ক’টি স্থানে গড়ে তোলা হবে স্পেশাল ইকোনমিক জোন। নির্মাণ করা হবে একটি রিফাইনারি।

বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বুধবার চট্টগ্রামে মেট্রোপলিটন চেম্বার অব কমার্স এ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি আয়োজিত আন্তর্জাতিক বাণিজ্য ও রফতানি মেলায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথাগুলো বলেন। হালিশহরে আবাহনী মাঠে শুরু হয়েছে মাসব্যাপী এ মেলা। এতে অংশগ্রহণ করছে দেশী-বিদেশী বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান।

তিনি বলেন, ভাসমান এলএনজি টার্মিনাল স্থাপনের পর প্রতিদিন ৫শ’ মিলিয়ন ঘনফুট এলএনজি কাতার থেকে আমদানির মাধ্যমে চলমান গ্যাস সঙ্কটের নিরসন করা হবে। এ টার্মিনাল স্থাপনে আর কোন অনিশ্চয়তা নেই বলে উল্লেখ করে তিনি বলেন, এটি পরবর্তী ক্রয় সংক্রান্ত কমিটিতে অনুমোদিত হবে।

জ্বালানি সেক্টরে সরকারের বিভিন্ন পদক্ষেপ প্রসঙ্গে মন্ত্রী জানান, চীনের অর্থায়নে চট্টগ্রামে এক বিলিয়ন ডলার ব্যয়ে একটি রিফাইনারি নির্মাণ করা হবে। সরকারের আন্তরিকতার বিষয় তুলে ধরতে গিয়ে তিনি জানান, চট্টগ্রাম হবে সত্যিকারের বাণিজ্যিক রাজধানী, যা আপনারা দেখতে পাবেন।

চিটাগাং মেট্রোপলিটন চেম্বার অব কমার্স এ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি খলিলুর রহমানের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন ভূমিপ্রতিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ, সাবেক মন্ত্রী ডাঃ আফসারুল আমীন এমপি, মইনউদ্দিন খান বাদল এমপি ও মাহজাবীন মোরশেদ এমপি। বক্তব্য রাখেন চেম্বারের কর্মকর্তারা।

চিটাগাং মেট্রোপলিটন চেম্বারের পক্ষ থেকে জানানো হয়, আবাহনী মাঠে আয়োজিত এই মাসব্যাপী বাণিজ্য ও রফতানি মেলাটি হবে ভিন্নধর্মী একটি মেলা। এতে ক্রেতা ও দর্শনার্থীরা সুলভমূল্যে কেনাকাটার সুযোগ যেমন পাবেন, তেমনিভাবে আমদানি ও রফতানিকারকরাও পাবেন প্রয়োজনীয় তথ্য। বিদেশে দেশীয় পণ্যের বাজার সম্প্রসারণে এ মেলা ভূমিকা রাখবে বলে জানান চেম্বার সভাপতি খলিলুর রহমান। মেলা চলাকালে বাণিজ্য বিষয়ে বেশ ক’টি সেমিনারও অনুষ্ঠিত হবে। মেলা পরিদর্শনের জন্য বাংলাদেশে অবস্থিত বিভিন্ন বিদেশী দূতাবাসের কূটনৈতিক ও বিদেশী বিনিয়োগকারীদের আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে।