২৩ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

যুদ্ধাপরাধী বিচার ॥ সুবহানের মামলার রায়ের দিন চলতি সপ্তাহে


বিকাশ দত্ত ॥ একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধের সময় মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে অভিযুক্ত বিএনপি, জামায়াতে ইসলামী ও জাতীয় পার্টির ১২ শীর্ষ নেতার বিচারিক কার্যক্রম শেষে রায় ঘোষণার পর বর্তমান ট্রাইব্যুনালে মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে মাঝারি পর্যায়ের আরও আটটি ও একটি আদালত অবমাননাসহ নয়টি মামলার বিচারিক কার্যক্রম দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে। এর মধ্যে জামায়াতে ইসলামীর নায়েবে আমির আব্দুস সুবহানের মামলার বিচারিক কার্যক্রম প্রায় শেষের দিকে। প্রসিকিউশন পক্ষ আশা করছে চলতি সপ্তাহেই বিচারিক কার্যক্রম শেষে রায় ঘোষণার জন্য দিন নির্ধারণ করা হতে পারে। অন্যদিকে জাতীয় পার্টির নেতা ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল জব্বারের মামলার যুক্তিতর্কও চলতি সপ্তাহে অনুষ্ঠিত হচ্ছে। মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে আরও তিনটি মামলা চলতি সপ্তাহে আমলে নেবে কিনা তার ওপর আদেশ প্রদান করবেন ট্রাইব্যুনাল। পাশাপাশি মোবারক-কায়সার ও এটিএম আজাহারুল ইসলামের তিনটি মামলার বিচারিক কার্যক্রম শেষে রায় ঘোষণার জন্য অপেক্ষমাণ (সিএভি) রাখা হয়েছে। প্রসিকিউশনপক্ষ আশা করছেন শীঘ্রই সিএভিকৃত মামলাগুলোর রায় ঘোষণা করা হতে পারে। তদন্ত সংস্থায় প্রায় ডজন খানেক মামলার তদন্ত চলছে। তদন্ত শেষে শীঘ্র চূড়ান্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করা হবে। তদন্ত সংস্থা ও প্রসিকিউশন সূত্রে এ খবর জানা গেছে।

মানবতাবিরোধী অপরাধে অভিযুক্তদের বিচারে জন্য আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল গঠনের পর এ পর্যন্ত মোট ১২টি মামলার রায় ঘোষণা করা হয়েছে। ট্রাইব্যুনালের দেয়া দ-ের ওপর আপীল বিভাগে তিনটি মামলা চূড়ান্ত নিষ্পত্তি হয়েছে। আরও দুটি মামলা নিষ্পত্তির অপেক্ষায় রয়েছে। একই সঙ্গে ট্রাইব্যুনালের দেয়া রায়ের পর জামায়াত আমির মতিউর রহমান নিজামী ও মীর কাসেম আলীর মামলা দুটি আপীলের অপেক্ষায় রয়েছে। প্রসিকিউশন সূত্রে জানা গেছে, বর্তমানে ট্রাইব্যুনাল-১ ও ২ এ জামায়াত নেতা আব্দুস সুবহান ও জাতীয় পার্টি নেতা ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল জব্বারের মামলা দুটি শেষ পর্যায়ে।

আব্দুস সুবহানের মামলাটি সাক্ষ্যগ্রহণের পর এখন আসামিপক্ষের যুক্তিতর্ক চলছে। আজ রবিবার আবারও আসামি পক্ষ যুক্তিতর্ক উপস্থাপনের জন্য দিন নির্ধারণ করা হয়েছে। প্রসিকিউশনপক্ষ আশা করছেন চলতি সপ্তাহেই সুবহানের মামলার বিচারিক কার্যক্রম শেষে রায় ঘোষণার জন্য সিএভি রাখা হতে পারে। গত বছরের ১৫ এপ্রিল থেকে সুবহানের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু করে গত ১২ সেপ্টেম্বর তদন্ত কাজ সম্পন্ন করেন তদন্ত সংস্থা। তদন্তের স্বার্থে গত ১ সেপ্টেম্বর সেফহোমে নিয়ে সুবহানকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছেন তদন্ত সংস্থা। নয়টি অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত কর্মকর্তা ও জব্দ তালিকার সাক্ষীসহ মোট ৪৩ জনকে সাক্ষী করা হয়েছে সুবহানের বিরুদ্ধে। ২০১২ সালের ২০ সেপ্টেম্বর সকালে টাঙ্গাইলে বঙ্গবন্ধু সেতুর পূর্ব প্রান্ত থেকে সুবহানকে আটক করে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

এেিদক দ্বিতীয় পর্যায়ে রয়েছে পিরোজপুরের পলাতক ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল জব্বারের মামলাটি। এই মামলায় সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে যুক্তিতর্কের জন্য ২৫ নবেম্বর দিন নির্ধারণ করা হয়েছে। প্রথম পর্যায়ে প্রসিকিউশনপক্ষ তাদের যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করবেন। এর পর রাষ্ট্রকর্তৃক নিয়োজিত আইনজীবী আসামির পক্ষে যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করবেন। যুুক্তিতর্ক শেষে ট্রাইব্যুনাল রায় ঘোষণার জন্য সিএভি করবেন। আসামি জব্বারের বিরুদ্ধে তদন্ত কর্মকর্তাসহ মোট ২৪ জন সাক্ষ্য প্রদান করেছেন। মঠবাড়িয়ার সাবেক সংসদ সদস্য ও জাতীয় পার্টির নেতা জব্বারের বিরুদ্ধে গত ১৪ আগস্ট অভিযোগ গঠন করা হয়। ৭ সেপ্টেম্বর সূচনা বক্তব্য উপস্থাপন শেষে সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু হয়। এর আগে ৮ জুলাই ট্রাইব্যুনালের এক আদেশে বলা হয়, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী জব্বারকে গ্রেফতার করতে পারেনি। পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পরও হাজির হননি জব্বার। এজন্য তাকে পলাতক ঘোষণা করা হলো। আইনজীবী আবুল হাসানকে মামলায় পলাতক আসামিপক্ষে আইনী লড়াইয়ের জন্য রাষ্ট্রনিযুক্ত আইনজীবী নিয়োগ করা হয়। গত ১২ মে তার বিরুদ্ধে প্রসিকিউশনের

আনীত পাঁচটি অভিযোগ আমলে নিয়ে তাকে গ্রেফতারে পরোয়ানা জারি করে ট্রাইব্যুনাল। অন্যদিকে চাঁপাইনবাবগঞ্জের মোঃ মাহিদুর রহমান (৮৪) ও মোঃ আফসার হোসেন ওরফে চুটুর (৬৫) বিরুদ্ধে অভিযোগ আমলে নেবে কি নেবে না সে বিষয়ে আদেশ প্রদান করা হবে ২৩ নবেম্বর। একইভাবে পটুয়াখালীর ফোরকান মল্লিকের মামলা আমলে নেয়ার বিষয়ে আদেশ ৩০ নবেম্বর প্রদান করা হবে। একই সঙ্গে বাগেরহাটের তিন রাজাকার কসাই সিরাজ, আব্দুল লতিফ তালুকদার ও খান আকরাম হোসেনের বিরুদ্ধে ২ ডিসেম্বর সূচনা বক্তব্য প্রদান করবেন প্রসিকিউশনপক্ষ। নেত্রকোনার মুসলীম লীগ নেতা আতাউর রহমান ননি (৬২) ও নেজামে ইসলামের ওবায়দুল হক তাহেরের (৬৪) বিরুদ্ধে ৪ ডিসেম্বর আনুষ্ঠানিক অভিযোগ (ফরমাল চার্জ) দাখিলের নির্দেশ দিয়েছেন ট্রাইব্যুনাল। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার রাজাকার হাসান আলীর বিরুদ্ধে ৭ ডিসেম্বর সূচনা বক্তব্য প্রদান করবেন প্রসিকিউশনপক্ষ।

মুক্তিযুদ্ধে শহীদের সংখ্যা নিয়ে ব্যক্তিগত ব্লগে আপত্তিকর মন্তব্য করায় বিদেশী সাংবাদিক ডেভিড বার্গম্যানের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার অভিযোগের আদেশের জন্য আগামী ১ ডিসেম্বর দিন ধার্য করেছেন ট্রাইব্যুনাল। ব্লগে লেখার বিষয়ে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশনা চেয়ে আবেদন করেন হাইকোর্টের আইনজীবী আবুল কালাম আজাদ। ট্রাইব্যুনালে মানবতাবিরোধী অপরাধে দ-প্রাপ্ত পলাতক আবুল কালাম আযাদের রায় নিয়ে করা মন্তব্যে ট্রাইব্যুনালের মর্যাদাহানি হয়েছে বলে আবেদনে অভিযোগ করা হয়েছে। একই সঙ্গে এই আইনজীবী তাঁর আবেদনে উল্লেখ করেন ডেভিড বার্গম্যানের ব্লগে দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর রায় নিয়ে করা মন্তব্যেও আদালত অবমাননা হয়েছে। গত ২০ ফেব্রুয়ারি সাংবাদিক ডেভিড বার্গম্যানের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার অভিযোগে রুল জারি করে আদালত। ট্রাইব্যুনালে ৬ মার্চ হাজির হয়ে ২০১১ সালের ১১ নবেম্বর ও ২০১৩ সালের ২৮ জানুয়ারি ব্লগে লেখার বিষয়ে ব্যাখ্যা দেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়।

বিচারাধীন বিষয়ে বক্তব্য দেয়া এবং বক্তব্য প্রকাশ দৈনিক সংগ্রামের সম্পাদক আবুল আসাদসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে কেন আদালত অবমাননার অভিযোগ আনা হবে না এ বিষয়ে শুনানীর জন্য ২৪ ডিসেম্বর দিন ধার্য করা হয়েছে। চেয়ারম্যান বিচারপতি এম এনায়েতুর রহিমের নেতৃত্বে তিন সদস্যবিশিষ্ট আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১ এ আদেশ প্রদান করেছেন। উল্লেখ্য, ২৬ অক্টোবর বিচারাধীন বিষয়ে বক্তব্য দেয়া এবং বক্তব্য প্রকাশ করায় ট্রাইব্যুনালের কাছে পুনরায় ক্ষমা প্রার্থনা করেছেন দৈনিক সংগ্রামের সম্পাদক আবুল আসাদসহ ৪ জন। ২০ নবেম্বর এ বিষয়ে পরবর্তী শুনানীর জন্য দিন ছিল। কিন্তু আসামি পক্ষের আইনজীবী সময় প্রার্থনা করায় পুনরায় ২৪ ডিসেম্বর পরবর্তী দিন নির্ধারণ করা হয়েছে। আদেশের পর প্রসিকিউটর তাপস কান্তি বল বলেন আসামিপক্ষের আবেদনের কারণে ট্রাইব্যুনাল এ দিন নির্ধারণ করেছেন।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: