২২ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

আরও ইতিহাস গড়তে চান সাকিব


আরও ইতিহাস গড়তে চান সাকিব

শাকিল আহমেদ মিরাজ ॥ মানুষ তার আশার সমান বড়, সাকিব বোধ হয় তার চেয়ে বেশি! নইলে অবিশ্বাস্য কীর্তির পরও বলেন, ‘এর চেয়ে ভাল করা সম্ভব!’ আসলে অন্যরা যা কল্পনা করার সাহস পান না, সাকিব আল হাসান নামের খেয়ালী ক্রিকেটার তা বাস্তবে করে দেখান। খুলনা ম্যাচে সেঞ্চুরি ও দশ উইকেট তুলে নিয়ে টেস্টের ১৩৭ বছরের ইতিহাস নাড়িয়ে দেয়ার পর প্রশ্ন ছিলÑ এর চেয়ে ভাল করা সম্ভব? আকাশ ছোঁয়া সাকিবের উত্তর, ‘এটা অসামান্য অর্জন। তবে আমি বিশ্বাস করি এর চেয়ে ভাল করা সম্ভব!’ তার মানে ম্যাচে ১৫ উইকেট, দুই ইনিংসেই সেঞ্চুরি কিংবা তার চেয়ে বেশি কিছুর স্বপ্ন ২৭ বছর বয়সী বাংলাদেশী অলরাউন্ডারের চোখে? উত্তরদাতা সাকিব বলেই হয়ত বিশ্বাস করতে ইচ্ছে হয়, ভাবতে ভাল লাগে!

বুধবার চট্টগ্রামে শুরু হচ্ছে সিরিজ নির্ধারণী শেষ টেস্ট। কিন্তু ঘুরে ফিরে সামনে আসছে কেবলই খুলনা প্রসঙ্গ, যেখানে অবিশ্বাস্য কা- করে আলো ছড়িয়েছেন সাকিব আল হাসান। ব্যক্তিগত রেকর্ড গড়ে বাংলাদেশের ক্রিকেটকেই নতুন উচ্চতায় সমাসীন করেছেন তরুণ অলরাউন্ডার। যার হাত ধরে আজ অনেক ইতিহাসের সাক্ষী বাংলাদেশ। এক সময় দূরদর্শনের বিজ্ঞাপনে র‌্যাঙ্কিং তালিকায় এ্যান্ডি ফ্লাওয়ার, শহীদ আফ্রিদি, জ্যাক ক্যালিস, ব্রায়ান লারা, শচীন টেন্ডুলকরদের দেখে আফসোস হতো। ক্রিকেটপাগল বাঙালী ভাবত, কবে এখানে বাংলাদেশের কেউ স্থান করে নেবেন? সাকিবের কল্যাণে সেটি প্রথম দেখে বাংলাদেশ। একে একে সবাইকে মারিয়ে অলরাউন্ডার র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষস্থান দখল করেন তিনি। ঘুরে ফিরে টেস্ট-ওয়ানডে-টি২০ তিন ঘারনার ক্রিকেটেই শীর্ষস্থানে ওঠা একমাত্র ক্রিকেটারও সাকিব!

২০০৯ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে সেই প্রথম টেস্ট সিরিজ জয়ের অন্যতম রূপকার এই সাকিবই। ব্যাটে-বলে সব্যসাচী সাকিব আজ বিশ্বতারকা, ‘ব্র্যান্ড অব বাংলাদেশ ক্রিকেট।’ গত আইপিইলে কলকাতা নাইট রাইডার্স চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পর দলের মালিক শাহরুখ খান ও ভক্তদের রায়ে টুর্নামেন্টসেরা ছিলেন তিনিই! ক্ষণজন্মা এই দুরন্ত অলরাউন্ডার এবার নাড়িয়ে দিলেন গোটা পৃথিবী। সাড়ে সাত বছরের ছোট্ট ক্যারিয়ারে সেঞ্চুরি কিংবা পাঁচ উইকেট প্রাপ্তির আনন্দে ভেসেছেন অনেকবার। কিন্তু খুলনা টেস্টে গড়েছেন নতুন ইতিহাস। জায়গা করে নিয়েছেন মহানায়কদের কাতারে। ইতিহাসের মাত্র তৃতীয় ক্রিকেটার হিসেবে একই টেস্টে সেঞ্চুরির পাশাপাশি বল হাতে ১০ উইকেট শিকারের অনন্য নজির স্থাপন করেন বাংলাদেশী অলরাউন্ডার। খুলনার শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামে দ্বিতীয় টেস্টের শেষ দিনে জিম্বাবুইয়ের এম সাঙ্গিকে আউট করে অনন্য এ রেকর্ডে অন্তর্ভুক্ত হন তিনি। ‘টাইগার হিরোর’ কল্যাণে দীর্ঘ ৩১ বছর পর এমন অবিশ্বাস্য কীর্তি দেখে ক্রিকেটবিশ্ব।

১৯৮০ সালে সাবেক ইংল্যান্ড অধিনায়ক ইয়ান বোথামের প্রথম এটি করেছিলেন। তিন বছর পর ১৯৮৩ সালে আরেক সাবেক পাকিস্তান অধিনায়ক ইমরান খান দ্বিতীয় ক্রিকেটার হিসেবে এমন অসাধারণ অলরাউন্ড পারফর্মেন্সে ম্যাচে সেঞ্চুরির পাশাপাশি ১০ বা ততধিক উইকেট তুলে নিয়েছিলেন। এবার ওই দুই জীবন্ত কিংবদন্তির কাতারে নাম লেখান সাকিব। কেবল ব্যক্তিগত অর্জন নয়, ভাল খেলে দেশকে আরও ওপরে তুলে নিতে চান তিনি। সম্প্রতি সময়টা ভাল যাচ্ছিল না। যে করে হোক আমরা ঘুরে দাঁড়াতে চাইছিলাম। এক ম্যাচ হাতে রেখে সিরিজ জয়ে আমাদের প্রতি সমর্থকদের প্রত্যাশা বেড়ে গেছে। চট্টগ্রাম টেস্টে আরও ভাল খেলতে চাই। চাই সাফল্যের ধারা অব্যাহত রেখে এগিয়ে যেতে।’ বলেন সাকিব।