২০ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

ময়মনসিংহ নার্সিং কলেজ অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ


৪ শতাধিক শিক্ষার্থীর হল ত্যাগ

স্টাফ রিপোর্টার, ময়মনসিংহ ॥ ক্যাম্পাসে ব্যাপক পুলিশ মোতায়েন করায় অবশেষে হল ছেড়ে যেতে বাধ্য হয়েছে ময়মনসিংহ নার্সিং কলেজের আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। মঙ্গলবার সকাল ১০টায় কলেজের ৪ শতাধিক শিক্ষার্থী কর্তৃপক্ষের সর্বশেষ বেঁধে দেয়া সময় মেনে হল ছেড়ে দিয়েছে। হল ত্যাগের পর কলেজ কর্তৃপক্ষ হল ও কলেজের প্রধান ফটকে তালা লাগিয়ে দেয়। আন্দোলনের মুখে সোমবার সকালে কলেজ কর্তৃপক্ষ হাসপাতাল পরিচালকের কক্ষে একাডেমিক শৃঙ্খলা কমিটির জরুরী সভা ডেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করে ময়মনসিংহ নার্সিং কলেজ। একই সঙ্গে বেলা ২টার মধ্যে হল ত্যাগের নির্দেশ দেয়া হয়। কলেজ অধ্যক্ষ মনোয়ারা খাতুন জানান, ক্যাম্পাসে অনাকাক্সিক্ষত ঘটনা এড়াতেই এ সিদ্ধান্ত। কর্তৃপক্ষের বেঁধে দেয়া সময়ে হোস্টেল ত্যাগ না করায় সোমবার সন্ধ্যার দিকে শিক্ষার্থীদের ওপর পুলিশের লাঠিচার্জে অন্তত ২০ শিক্ষানবিস নার্স আহত হয়েছে। এদের মধ্যে গুরুতর ৬ জনকে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ১২ নম্বর ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়েছে। আহতরা হচ্ছে সায়েদা খাতুন, সঙ্গীতা পারভীন, নাজমুন নাহার, শম্পা আক্তার, শাকিলারা পারভীন ও জিন্নাত আরা। স্থানীয় সূত্র জানায়, সোমবার বেলা ২টার মধ্যে হল ছাড়ার নির্দেশ থাকলেও আন্দোলনরত শিক্ষার্থী অবস্থান নিয়েছিল ক্যাম্পাসে। সন্ধ্যর আগে পুলিশ বলপ্রয়োগ করেও শিক্ষার্থীদের বের করতে না পারায় মানবিক বিষয় বিবেচনা করে কলেজ কর্তৃপক্ষ মঙ্গলবার সকাল ১০টার মধ্যে হল ছাড়তে বলে শিক্ষার্থীদের। মঙ্গলবার সকাল থেকে ক্যাম্পাসে পুলিশের উপস্থিতি বাড়ানো হয়। শিক্ষার্থীদের অনেকে এ সময় ভয়ে ব্যাগসহ হলের ফটকে অবস্থান নেয়। একই সঙ্গে হাসপাতাল পরিচালকের সঙ্গে আন্দোলনকারীদের একটি প্রতিনিধি দল যোগাযোগের চেষ্টা চালায়। কিন্তু শেষ পর্যন্ত হল ছেড়ে যেতে বাধ্য হয় শিক্ষার্থীরা। এ সময় অনেকে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। শিক্ষার্থীরা জানিয়েছে, সোমবার পুলিশ তাদের ওপর লাঠিচার্জ করায় অনেকে হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছে। মঙ্গলবার আবার পুলিশ লাঠিপেটা করতে পারে এমন আশঙ্কা থেকে তারা হল ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এদিকে হল ছাড়ার পর পরিবহন সঙ্কটে অনেকে পড়েছে চরম বিপাকে। অনেকে আশ্রয় নিয়েছে ময়মনসিংহে স্বজনদের বাসা বাড়িতে।

অদক্ষতার অভিযোগে কলেজ অধ্যক্ষ মনোয়ারা খাতুন ও হাউস কিপার নাজমুন নাহারের অপসারণের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা এর আগে জানিয়েছিল দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত হল ছাড়বে না তারা। শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করে, কলেজ অধ্যক্ষের অদক্ষতার কারণে নার্সিং কলেজের প্রশাসনিক চেইন অব কমান্ড ভেঙ্গে পড়েছে। শিক্ষার্থীদের আবাসন সঙ্কটসহ কোন সমস্যারই সহজ সমাধান করতে পারছে না কলেজ অধ্যক্ষ। কলেজের হাউজ কিপার প্রাপ্তবয়স্ক ছেলেদের নিয়ে হোস্টেলের একাধিক কক্ষ দখল করে অবস্থান করলেও শিক্ষার্থীদের আপত্তির পর নীরব থাকেন কলেজ অধ্যক্ষ। এ নিয়ে দুই দফা দাবি আদায়ে ৫ দিনের লাগাতার কর্মসূচী দিয়ে গত ১৮ অক্টোবর থেকে যুগপৎ আন্দোলনে নামে বিএসসি ও ডিপ্লোমা নার্সিং শিক্ষার্থীরা। ময়মনসিংহ নার্সিং কলেজ স্টুডেন্টস ওয়েলফেয়ার এ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মোঃ রাসেল জানান, পুলিশ ও কলেজ কর্তৃপক্ষের চাপের মুখে হলত্যাগে বাধ্য করা হলেও দুই দফা দাবি আদায়ে তারা অনড়। এ সময় দাবি আদায় না হলে কলেজ খোলার পর কঠোর কর্মসূচী দেয়া হবে।