২০ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৫ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

জনগণ পরিবর্তন চায়, তাকিয়ে আছে জাতীয় পার্টির দিকে ॥ এরশাদ


শ্রমিক পার্টি নেতাদের সঙ্গে মতবিনিময়

স্টাফ রিপোর্টার ॥ জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান ও সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ দলের নেতাকর্মীদের বসে না থেকে নির্বাচনের প্রস্তুতি নেয়ার আহ্বান জানিয়ে বলেছেন, গণতন্ত্রের স্বপ্ন ছিল, কিন্তু দুই দলের শাসনে সেই স্বপ্ন ভেঙ্গে চুরমার হয়ে গেছে। গণতন্ত্র মানে জনগণের শাসন। কিন্তু দেশে এখন একদলীয় শাসন চলছে। তাই বিশ্রামের সময় নেই, তোমরা বসে থেকো না। সময় কম, আমি ঘুরে বেড়াচ্ছি। প্রতিটি মিনিট মূল্যবান। তাই তোমাদের আগামী নির্বাচনের জন্য প্রস্তুতি নিতে হবে।

রবিবার বনানীতে পার্টি চেয়ারম্যানের রাজনৈতিক কার্যালয়ে জাতীয় শ্রমিক পার্টির কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় এরশাদ আরও বলেন, আমরা আবার গণতন্ত্র ফিরে পাব। মানুষ সুবিচার পাবে। তোমরা কাজ করো। দেশের মানুষ আমাকে ভোলেনি। দেশের বর্তমান অবস্থার প্রেক্ষিতে জনগণ পরিবর্তন চায়। চারদিকে জাগরণের সৃষ্টি হচ্ছে। তাই আমাদের এখন বিশ্রামের সময় নেই। হরতালের মধ্যেও সভায় আসার জন্য জাতীয় শ্রমিক পার্টির নেতাকর্মীদের ধন্যবাদ জানিয়ে সাবেক এই সেনা শাসক বলেন, হরতাল মানি না। ভূমিকম্প হলেও তোমাদের আসতে হবে। এটাই আমাদের প্রতিশ্রুতি। আজ (রবিবার) হরতাল উপেক্ষা করে তোমরা কর্মসূচীতে যোগ দিয়েছ। পার্টির মহাসচিব নির্দেশ দিয়েছিলেন, হরতাল তো বটেই ভূমিকম্প হলেও কর্মসূচীতে যোগ দিতে হবে। তোমরা সেই নির্দেশ পালন করেছ। এ জন্য তোমাদের ধন্যবাদ। এখন বিশ্রামের সময় নেই। বসে থেক না।

প্রধানমন্ত্রীর সমালোচনা করে তাঁরই বিশেষ দূত এইচ এম এরশাদ বলেন, আমি যখন ক্ষমতায় ছিলাম তখন জনসংখ্যা সীমিত রাখার জন্য পরিবার পরিকল্পনা প্রকল্প শুরু করেছিলাম। জনগণকে বোঝাতে সক্ষম হয়েছিলাম যে আমাদের এই সীমিত আয়তনের দেশে অতিরিক্ত জনসংখ্যা কত সমস্যা সৃষ্টি করতে পারে। কিন্তু কিছুদিন আগে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, জনসংখ্যা বেশি হলেও সমস্যা নেই, একে জনশক্তিতে পরিণত করা হবে। ঘরে ঘরে আজ বেকারত্বের মহোৎসব চলছে, লাখ লাখ যুবক বেকার। চাকরির খোঁজে বিদেশ যাওয়ার সময় প্রতারণার শিকার হচ্ছে। হতাশ হয়ে যুবসমাজ মাদকাসক্ত হয়ে পড়ছে।

সাবেক এই রাষ্ট্রপতি বলেন, সড়ক দুর্ঘটনায় মৃত্যু এখন নিত্যনৈমিত্তিক ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। সেদিন একসঙ্গে ৩৪ জন মারা গেল। আমরা শুধু দুঃখ প্রকাশ করি, কিন্তু কারা মারা গেল, কেন মারা গেল- সে খবর রাখি না। শুধু কী ভাবে ক্ষমতায় থাকা যায়, ক্ষমতায় যাওয়া যায়Ñ সেই চিন্তাই করি। আমরা সবকিছু হারিয়ে ফেলছি। এমনকি শ্রদ্ধাবোধও হারিয়ে ফেলছি। তিনি বলেন, আশা করি সুদিন আসবে। সেদিন আমরা পরিবর্তন আনব।

প্রধানমন্ত্রীকে তাঁর প্রতিশ্রুতি পালনের আহ্বান জানিয়ে এরশাদ আরও বলেন, থাইল্যান্ডের সৈকতে হাজার হাজার বাঙালী পড়ে আছে। শ্রমিকদের কাছ থেকে টাকা নিয়ে তাদের মাঝ সমুদ্রে ফেলে দেয়া হচ্ছে। এই কী জনশক্তির নমুনা? প্রধানমন্ত্রীকে বলব, আপনি যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন তা পালন করুন। বিপদগ্রস্ত শ্রমিকদের ফিরিয়ে আনুন।

শ্রমিক পার্টির সভাপতি শাহ আলম তালুকদারের সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখেন জাতীয় পার্টির মহাসচিব জিয়াউদ্দিন আহম্মেদ বাবলু এমপি, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ জাতীয় পার্টির আহ্বায়ক সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা এমপি, ঢাকা মহানগর উত্তরের সভাপতি এস এম ফয়সল চিশতী, প্রেসিডিয়াম সদস্য সুনীল শুভ রায়, যুগ্ম মহাসচিব এ্যাডভোকেট রেজাউল ইসলাম ভুইয়া, নুরুল ইসলাম নুরু, যুব সংহতির সাধারণ সম্পাদক মোবারক হোসেন আজাদ, শ্রমিক পার্টির সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর হোসেন প্রমুখ।